• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪ জানুয়ারি ২০২০ ২১:৩৬:২৬
  • ১৪ জানুয়ারি ২০২০ ২১:৩৬:২৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

৫৫ কোটি বছরের বিলুপ্তপ্রায় রাজ কাঁকড়া শঙ্খ নদীতে

ছবি : সংগৃহীত

প্রায় ৫৫ কোটি বছরের বিলুপ্তপ্রায় রাজ কাঁকড়া পাওয়া গেল চট্টগ্রামের আনোয়ারায় শঙ্খ নদীতে। অলৌকিক ওষধিগুণের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে এই প্রাণীর রক্ত ও অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অত্যন্ত দামি বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার শঙ্খ নদীর মোহনা বা বঙ্গোপসাগর উপকূলে শনিবার রজিত জল দাসের জালে ধরা পড়ে দুটি রাজ কাঁকড়া।

উপজেলার জুঁইদণ্ডী ইউনিয়নের জেলে পাড়া এলাকার রজিত জল দাশের ধরা এই রাজ কাঁকড় দুটি টি গিগাস প্রজাতির। স্থানীয় জেলেরা এটিকে দৈত্য কাঁকড়া নামে ডাকে।

রজিত জলদাশ বলেন, ‘প্রতিদিনের মতো নদীতে কাঁকড়া ধরতে গেলে কাঁকড়া দুইটি দেখতে পাই। অনেক কষ্ট করে ধরার পর বাড়িতে নিয়ে আসি। কাঁকড়াগুলো যে মহামূল্যবান তা আমি আগে থেকে জানতাম না।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হালদা রিভার রিসার্চ ল্যাবরেটরির সমন্বয়ক ড. মঞ্জুরুল কিবরিয়া বলেন, রাজ কাঁকড়া ‘লিভিং ফসিল’ বা জীবন্ত জীবাশ্ম নামে পরিচিত। বাংলাদেশের সাগর উপকূল থেকে এরা এখন হারিয়ে যাচ্ছে। অলৌকিক ওষধিগুণের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে এই প্রাণীর রক্ত ও অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অত্যন্ত দামি।

এই কাঁকড়া দেখতে অশ্বখুরাকৃতির। পৃথিবীব্যাপী তিনটি গণের অধীনে এদের চারটি জীবিত প্রজাতি রয়েছে। প্রাগৈতিহাসিক এই প্রাণীকে ‘জীবন্ত জীবাশ্ম’ বলা হয়। যা প্রায় ৫৫০ মিলিয়ন বা ৫৫ কোটি বছর পূর্বে ট্রাইলোবাইট থেকে উৎপত্তি লাভ করে। এদের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত হওয়াতে অঙ্গসংস্থানিক পরিবর্তন ছাড়াই টিকে আছে পৃথিবীতে।

সাধারণত রাজ কাঁকড়ার জীবন চক্র ডিম, লার্ভা, জুভেনাইল এবং পূর্ণাঙ্গ দশা নিয়ে গঠিত। এরা ৯-১২ বছরে প্রাপ্তবয়স্ক হয়। পূর্ণ জোয়ারের সময় এরা প্রজনন করে। প্রজননের সময় প্রজাতিভেদে বসন্ত ও গ্রীষ্মের শুরুতে কর্দমাক্ত সৈকত বা নদী পাড়ে বিচরণ করে। রাজ কাঁকড়া ১২-১৯ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে।

সূত্র: বেঙ্গল ডিসকাভার

সংশ্লিষ্ট বিষয়

রাজ কাঁকড়া শঙ্খ নদী

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0217 seconds.