• ১৪ জানুয়ারি ২০২০ ২১:২৩:৪৩
  • ১৪ জানুয়ারি ২০২০ ২১:২৩:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

গায়ে কাদা মেখে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ছবি : সংগৃহীত

দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) :

নেত্রকোনার দুর্গাপুরের প্রায় সবগুলো সড়ক যেন দিনে রাতে ২৪ ঘণ্টাই দখল করে রেখেছে ৬ চাকার অবৈধ লড়ি গাড়ি। মূলত কৃষি কাজে ব্যবহারের জন্য এই গাড়িগুলো তৈরী করা হলেও এক শ্রেণির ব্যবসায়ী এগুলোকে ব্যবহার করছে বালু, পাথরসহ নানা রকম মালামাল পরিবহনে। 

বর্তমানে লাইসেন্স বিহীন অবৈধ যান কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে দুর্গাপুরবাসীর। পৌর শহরের অলি গলি থেকে শুরু করে সকল সড়কেই অবাধ চলাচল এসব লড়িগাড়ির। আর ভেজা বালু পরিবহন করায় পৌষ মাসের এই কনকনে শীতেও রাস্তায় পানি আর কাদার কারণে চলাচল করতে পারে না পথচারী ও শিক্ষার্থীরা। 

এই দিকে পৌর শহরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর যাতায়াতের একমাত্র সড়ক সাধুপাড়া এলাকার সড়কের যেন করুন অবস্থা। সরকারি বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাসহ বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের রয়েছে এই সড়কের পাশেই। কিন্তু প্রতিদিন শত শত অবৈধ লড়ি চলায় সড়কে তৈরী হচ্ছে নতুন নতুন খানাখন্দের। এই খানাখন্দে পড়ে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনাও। তার উপর ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে জ্যাম লেগে থাকায় সময় মত বিদ্যালয়েও আসতে পাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা। শুধু তাই নয় ফিটনেসবিহীন এইসব যানের তীব্র শব্দে একটি দিকে যেমন দূষিত হচ্ছে পরিবেশ তেমনি তীব্র শব্দের কারণে শ্রেণি কক্ষে বসে পড়ালেখাও করতে পারচ্ছে না বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।  

আর এর প্রতিবাদ জানিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন কয়েক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুরে পৌর শহরের সাধুপাড়া এলাকায় দি চাইল্ড নার্সিংহোম, অবাইদুল্লাহ ক্যাডেট মাদ্রাসা, সুসং আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শিক্ষক ও অভিভাবকরা এসব অবৈধ যানের বন্ধের দাবিতে রাস্তায় নেমে আসে। এই সময় তারা গায়ে কাদা মেখে পৌর শহরের বেশ কিছু সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয়ের সামনে এসে জড়ো হন।

এই সময় শিক্ষার্থীরা ভিজা বালি পরিবহন বন্ধ, বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানো বন্ধ সহ সড়কের পুরোপুরি লড়ি গাড়ি বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার আশ্বাসে বিদ্যালয়ে ফিরে যায় শিক্ষার্থীরা। তবে অবৈধ এই যান বন্ধ না হলে আবারো সড়কে নামবেন বলে জানায় শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। 

দি চাইল্ড নার্সিংহোম শিক্ষক শিমুল জানায়, এই লড়ি গাড়ির জন্য আমরা শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে পড়াতে পারি না। এই গাড়িগুলো যখন সড়ক দিয়ে যায় এত তীব্র শব্দ হয় যেন মনে হয় সবকিছু ভেঙেচুরে যাচ্ছে। তাই শিক্ষার্থীরা দিনদিন অমনযোগী হয়ে পড়ছে। আর এর প্রভাব পড়ছে লেখাপড়ায়। তাই আমরা চাই এসব অবৈধ যান বন্ধ হোক।

স্থানীয় এক অভিভাবক জানায়, গাড়িগুলো ভেজা বালু পরিবহন করায় সড়ক দিয়ে চলাচল করতে যায় না। অনেক সড়কের ময়লা পানি শিক্ষার্থীদের গায়ে ছিঁটিয়ে বই খাতাসহ জামা কাপরও নষ্ট হয়ে যায়। আর যেভাবে এই সব গাড়ি চলে একটা দুর্ঘটনা ঘটলে এর দায় ভার কে নিবে? তাই আমার বাচ্চাদের বিদ্যালয়ে পাঠাতেও ভয় হয়।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

নেত্রকোনা শিক্ষার্থী

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0200 seconds.