• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ১৩ জানুয়ারি ২০২০ ২২:০৬:৩৯
  • ১৩ জানুয়ারি ২০২০ ২২:০৬:৩৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

এক হাতে ১৪ সেলাই, অন্য হাতে ধরলেন গেইলের ক্যাচ

ছবি : সংগৃহীত

ইনিংসের ছয় নম্বর ওভারে বোলিংয়ে এসে ওপেনার জিয়াউর রহমানকে স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন ঢাকা প্লাটুনের অফ স্পিন অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান। ১২ বলে ২টি ছক্কা এবং ৩টি চারের সাহায্যে ২৫ রান করে আউট হন জিয়াউর।

ক্রিস গেইলের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়েন ইমরুল কায়েস। কিন্তু ইনিংসের ১৩তম ওভারের তৃতীয় বলে ইমরুলকে থিসারা পেরেরার হাতে ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে পাঠান পাকিস্তানি রিক্রুট সাদাব খান। মাত্র ২২ বলে ৩২ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন ইমরুল। যেখানে ৩টি ছক্কা এবং একটি চার মারেন তিনি।

১৫তম ওভারের চার নম্বর বলে অধিনায়ক মাশরাফির হাতে ক্রিস গেইলকে ক্যাচ বানান সাদাব খান। সাদাবের করা বলটি তুলে মারতে গিয়ে মাশরাফির তালুবন্দি হন এই ক্যারিবিয়ান। আগের ম্যাচে হাতের ইনজুরিতে পড়া মাশরাফি আজ খেলতে নেমেছেন ১৪টি সেলাই নিয়েই। সেই অবস্থাতেই এক হাতে গেইলের ক্যাচটি লুফে নেন ঢাকার অধিনায়ক।

এর আগে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এলিমিনেটর ম্যাচে চট্টগ্রামের বিপক্ষে নির্ধারিত ২০ ওভারে আট উইকেটে ১৪৪ রান সংগ্রহ করে ঢাকা প্লাটুন। শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ইনিংসের শুরুটা ভালোমতো করতে পারেননি ঢাকার ব্যাটসম্যানরা।

রুবেল হোসেনের দ্বিতীয় ওভারে বোল্ড হয়ে ফিরে যান ওপেনার তামিম ইকবাল (৩)। তামিমের বিদায়ের পর শূন্য রানে বিদায় নেন এনামুল হক বিজয় ও লুইস রিস। বিজয়কে নাসুম আহমেদ ফেরান, রিসকে ফেরান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ওপেনার মুমিনুলকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন মেহেদী হাসানও (৭)।

রায়াদ এমরিটের বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে আসিলা গুনারত্নের তালুবন্দী হন তিনি। এরপরের বলেই এমরিট জাকের আলীকে (০) বিদায় করেন। শেষদিকে থিসারা পেরেরার ১৩ বলে ২৫ ও সাদাব খানের ৪১ বলে ৬৪* রানের ইনিংসে এই সংগ্রহ করেছে ঢাকা। ইনিংসে ছিল পাঁচটি চার ও তিনটি ছক্কার মার। মাশরাফি বিন মুর্তজাকে সঙ্গে নিয়ে শেষ ১৪ বলে ৪০ রান নেন সাদাব।

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0193 seconds.