• ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৫:৫২:২১
  • ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯ ১৫:৫২:২১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

একদলীয় শাসনতন্ত্রের দেশে সুবিচার অসম্ভব : ছাত্রদল সেক্রেটারী

ছবি : সংগৃহীত

ঢাবি প্রতিনিধি :

বাংলাদেশ ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি ইকবাল হোসেন শ্যামল বলছেন, ‘দেশে একদলীয় শাসনতন্ত্রের কারণে প্রধান বিচারপতির দেশত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন। সেরকম একটি দেশে কখনো সুবিচার হতে পারেনা।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল ১১ টায় মধুর ক্যান্টিন থেকে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাজুতে অবস্থান নেয় তারা। এই সমাবেশে দলটির বিভিন্ন স্তরের প্রায় চার শতাধিক নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করে।

ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, ‘বাংলাদেশে একদলীয় শাসনতন্ত্র চলছে। এটা ভুটান নয়,সিকিম নয়।এটা স্বাধীন বাংলাদেশ। আন্দোলনের মাধ্যমে আমরা আমাদের প্রানপ্রিয় নেত্রীকে মুক্ত করব।’

এ সময় তিনি শীঘ্রই আন্দোলনের ডাক আসার ইঙ্গিত দিয়ে সবাইকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রীর মুক্তির এ আন্দোলনে  আমরা সবাই স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করব। রক্ত এবং ত্যাগের মাধ্যমে  বাংলাদেশ তৈরি করব।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার বলেন, ‘আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। তিনি অসুস্থ। তারপরেও মেডিকেল রিপোর্ট দিতে বিলম্ব করছে। আমরা আর হাইকোর্টের দিকে তাকিয়ে থাকবেনা। রাজপথেই নিশ্চিত করব আমাদের নেত্রীর মুক্তি।’

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতের দেয়া রায়ে খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। এই সাজা বাতিল চেয়ে গত বছরের ১৮ নভেম্বর হাইকোর্টে আপিল করেন খালেদা জিয়া। শুনানি নিয়ে গত ৩০ এপ্রিল হাইকোর্ট ওই আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। একই সঙ্গে খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে বিচারিক আদালতে দেয়া জরিমানার আদেশ স্থগিত করে বিচারিক আদালতে থাকা মামলাটির নথি তলব করেন হাইকোর্ট। গত ২০ জুন মামলার নথি হাইকোর্টে আসার পর খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন আদালতে তুলে ধরেন তার আইনজীবীরা। গত ৩১ জুলাই জামিন আবেদন খারিজ করেন হাইকোর্ট। পরে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আপিল বিভাগে যান।

আপিল বিভাগে আজ জামিন আবেদনর বিষয়ে রায় দেয়ার কথা থাকলেও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না পাওয়ায় সেটি পিছিয়ে ১২ই ডিসেম্বর নতুন তারিখ ধার্য করেছে হাইকোর্ট।

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0214 seconds.