• বিদেশ ডেস্ক
  • ২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৯:৩১:১৪
  • ২১ নভেম্বর ২০১৯ ১৯:৩১:১৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

‘সাঁতরে ইতালি যাবে বাংলাদেশিরা, তবু ভারতে যাবে না’

সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী। ছবি: দ্য প্রিন্ট

ভারতে অবস্থানরত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী বলেছেন, ‘বাংলাদেশিরা প্রয়োজনে সাগরে সাঁতার কেটে ইতালি যাবে, তবু ভারতে যাবে না। একজন বাংলাদেশি এমন দেশে যাবে যেখানে অনেক বেশি আয় করতে পারবে। ভারতের মাথাপিছু আয় বেশি না।’ ২০ নভেম্বর, বুধবার দিল্লিতে তার বিদায়ী ভাষণে এ কথা বলেন সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী।

ভারতে অবস্থানরত অবৈধ বাংলাদেশিদের অভিবাসীদের বহিষ্কারের জন্য বিজেপির ঘোষণার উপর ভিত্তি করে এই মন্তব্য করেন তিনি। দ্য হিন্দুর বরাত দিয়ে খবরটি প্রকাশ করেছে ভারতের আরেকটি বার্তা সংস্থা দ্য প্রিন্ট।

আসামের জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন (এনআরসি) একাত্তরের পরে ভারতে আগত অভিবাসীদের বহিষ্কার করার চেষ্টা করে আসছে। বুধবার, সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ অভিবাসীদের বেশ কয়েকবার ‘পোকা’ বলে সম্মোধন করে বলেন, পুরো দেশের জন্য একটি এনআরসি থাকবে।

মঙ্গলবার প্রেসক্লাব অব ইন্ডিয়ায় এক ভাষণে সৈয়দ মুয়াজ্জেম আলী বলেন, ‘ভারতীয় নির্বাচনের সময় অবৈধ অভিবাসন সংক্রান্ত বিষয়টি ব্যবহার করা হয়েছিল।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে অবৈধ অভিবাসন অভিযোগ করার কারণে উত্তর-পূর্ব ভারতে বাংলাদেশের এত সমালোচনা হয়েছে।’

বুধবার, তার বিদায়ী ভাষণে এবং দ্য হিন্দুকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘আমার দেশের যে কোনো মানুষই সাগরে সাঁতার কেটে ইতালি যাবেন কিন্তু ভারতে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের নাগরিকরা এমন জায়গায় যেতে চান যেখানে তারা বেশি উপার্জন করতে পারবেন।’ তখন তিনি উল্লেখ করেন যে, ভারতে মাথাপিছু আয় বেশি নয়।

প্রসঙ্গত, অর্থনৈতিকভাবে বাংলাদেশ ভারতের চেয়ে শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে বলে জানা যায়। এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) তাদের ২০১৯ সালের অক্টোবরের প্রতিবেদনে জানায়, ২০১৯ সালের জন্য বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশ থেকে ৮.১ শতাংশে উন্নিত হয়েছে। তবে, ভারতের ক্ষেত্রে তা ৭.২ থেকে ৬.৫ শতাংশ নেমে গেছে।

বাংলা/এসজে

সংশ্লিষ্ট বিষয়

এনআরসি ভারত বাংলাদেশি

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0206 seconds.