• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ০৮:৫১:৫৯
  • ১৫ নভেম্বর ২০১৯ ০৮:৫১:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ওমানের কাছে ৪-১ গোলের হার

ওমানিদের উচ্চতা ছুঁতে পারলেন না রহমত-জামালরা। ছবি : ওমান অবজার্ভার থেকে নেয়া

ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ঠিক ১০০ ধাপ এগিয়ে থাকা শক্তিশালী ওমানকে প্রথমার্ধে আটকে রেখেছিলেন জামাল ভূইঁয়ারা। তবে শেষ রক্ষা হলো না দ্বিতীয়ার্ধে। এ অর্ধেই এক হালি গোল হজম করলো বাংলাদেশ। যদিও পাল্টা একটি গোল শোধ করেছে তারা। এতেই বড় ব্যবধানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়লো জেমি ডে’র দল।

গতকাল ১৪ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার রাতে ওমানের রাজধানী মাসকাটে ২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এএফসি এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইপর্বে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিলো গোল শূন্য। তবে দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর তিন মিনিটের মাথায় (৪৮ মিনিট) স্বাগতিকদের এগিয়ে দেন মহসীন আল খালদি। 

এরপর ৬৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলেন আল মান্দার আল আলয়ী। ১০ মিনিটের মধ্যে ফের বাংলাদেশের জালে বল। ৭৮ মিনিটের গোলদাতা আর্শাদ আল আলয়ী। 

তিন মিনিট পর অবশ্য বাংলাদেশের পক্ষে একমাত্র গোলটি শোধ করেন বিপুল আহমেদ। এরপর ম্যাচটিতে চলে দারুণ কিছু আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ। এরমধ্যে অতিরিক্ত সময়ে এসে ওমানের ব্যবধান আবারো বাড়িয়ে দেন জুম্মা আল হাদি। শেষ পর্যন্ত ৪-১ ব্যবধানের পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় জামাল ভূইঁয়া-বিপুলদের।

বাংলাদেশ সময় ঠিক রাত ৯টায় ওমানের রাজধানী মাসকটের সুলতান কাবুজ স্পোর্টস কমপ্লেক্সে শুরু হওয়া ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করে বাংলা টিভি। আগের তিন ম্যাচের অপরিবর্তিত দল নিয়েই খেলা শুরু করে বাংলাদেশ।

এ বাছাইপর্বে বাংলাদেশের শুরুটা হয় আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১-০ পরাজয় দিয়ে। এরপর ঘরের মাঠে দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী কাতারের মুখোমুখি হয় তারা। দুর্দান্ত খেলেও সে ম্যাচে ২-০ গোলের হার মানতে হয়। সেই পারফরম্যান্স ধরে রেখে ভারতের মাটিতে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে ম্যাচের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেও ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় লাল-সবুজ জার্সিধারীদের।

এর আগে কেবল একবারই ওমানের মুখোমুখি হয়েছিলো বাংলাদেশ। ১৯৮২ সালে পাকিস্তানের করাচিতে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিলো ৩-১ গোলের ব্যবধানে।

বাংলা/এসএ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0211 seconds.