• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ০৬ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:০৭:১৭
  • ০৬ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:০৭:১৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

‘বন্ধু’ লোকমান ইস্যুতে মুখ খুললেন বিসিবি সভাপতি

ছবি : সংগৃহীত

ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিতে জড়িত আসামি বর্তমান বিসিবি পরিচালক লোকমান হোসেন ভূইয়ার বিরুদ্ধে সময়মতো আইনানুযায়ী পদক্ষেপ নেবে বিসিবি, লোকমান প্রসঙ্গে এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। তাছাড়া বিচারের বেলায় স্বজনপ্রীতির কোন স্থান নেই বলেও সাফ জানিয়েছেন বিসিবি বস।

বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে পুলিশি অভিযান চালানোর কয়েকদিন পরে গত ২৬ সেপ্টেম্বর নিজের বাসা থেকে লোকমান হোসেনকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব সদস্যরা। র‍্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মোহামেডান ক্লাবের ডিরেক্টর ইনচার্জ জনাব লোকমান হোসেন ক্যাসিনোর জন্য দিন প্রতি ৭০,০০০ টাকার বিনিময়ে ঘর ভাড়া দিয়েছিলেন। তাছাড়া, অস্ট্রেলিয়ার দুটি ব্যাংকে তার নামে ৪১ কোটি টাকা রয়েছে বলেও দাবি র‍্যাবের। 

এতোকিছুর পরেও বিসিবিতে লোকমানের পরিচালক পদে বহাল থাকা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। এমনকি সমালোচনার হাত থেকে রেহাই পাননি বিসিবি প্রধানও। সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে দাঁড়ায় তার (পাপন) আর লোকমানের প্রগাঢ় ‘বন্ধুত্ব’।

‘বন্ধুত্বের’ জেরেই লোকমানকে বিসিবিতে এখনো রাখা হয়েছে বলে অনেকেরই অভিযোগ রয়েছে বিসিবি প্রধানের বিরুদ্ধে। এদিকে, বুধবার বিসিবিতে এক সংবাদ সম্মেলনে নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমাদের অবস্থান খুব পরিষ্কার। কতগুলো আইন আছে, যে আইন আমার করা নয়। আমাদেরকে আইন মেনে চলতে হবে। যে গঠনতন্ত্র আমাদের আছে এখন, সেটি আইসিসির অনুমোদন নিয়ে করতে হয়েছে। কাজেই আমরা এমন কিছু করতে যাব না, যাতে কিনা বাংলাদেশের ক্রিকেট বিপদে পড়ে। যখন যেটা করা উচিত ও করা সম্ভব, সেটি আমরা করব। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই।’

লোকমানের ব্যাপারে আরো কিছুদিন সময় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানালেন বিসিবি সভাপতি।

তিনি বলেন, ‘এখন আমরা মনে করছি যে আরো কিছুদিন সময় নেয়া দরকার। একজন কাউন্সিলকেও চাইলেই বাদ দেয়ার ক্ষমতা আমাদের নেই। সে তো কাউন্সিলর বটেই, পাশাপাশি নির্বাচিত পরিচালকও। একজন নির্বাচিত পরিচালককে বাদ দেয়া খুবই কঠিন। আমরা আগে আইন-কানুন জানার ও বোঝার চেষ্টা করছি যে কী করা যায়। সময়মতো সিদ্ধান্ত যা নেয়ার, আমরা নেব।’

এদিকে, কিছুদিন আগে গণভবনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এক সংবাদ সম্মেলনেও উঁকি দিয়েছিলো লোকমান প্রসঙ্গ। তবে, এই বিষয়ে কোন কথা বলেননি শেখ হাসিনা। তবে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব ওবায়দুল কাদেরের ভাষ্যমতে, এখনো বিসিবিতে লোকমানের বহাল থাকার কোনো যৌক্তিক কারণ খুঁজে পাননি তিনি।

বাংলা/বিডি

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0189 seconds.