• ০৬ নভেম্বর ২০১৯ ২২:২৭:৫৮
  • ০৬ নভেম্বর ২০১৯ ২২:২৭:৫৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

মানোন্নয়ন শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে দোদুল্যমান চবি প্রশাসন

ছবি : সংগৃহীত

চবি প্রতিনিধি :

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) স্নাতোক ২০১৯-২০ ভর্তি পরীক্ষায় মান-উন্নয়নকারী পরীক্ষার্থীদের নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। গত বছর আবেদনের যোগ্যরা এ বছর আবেদনের যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবে না বলেও, অনেকেই পরীক্ষা দিয়ে মেধা তালিকায় স্থান করে নেয়। এতে প্রশাসনের দূর্বলতা ধরা পড়ে।পরে প্রশাসন নড়েচড়ে বসে।

এ নিয়ে ৬ নভেম্বর, বুধবার বিকেল দুইটার দিকে উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে কোর কমিটির জরুরি সভা শুরু হয়। পুরো সময় ভুক্তভোগী ভর্তিচ্ছুরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। পাঁচটার সময় একাডেমিক শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার এসএম আকবর হোছাইন তাদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন।

তবে কোর কমিটির ‘স্পষ্ট’ কোন সিদ্ধান্ত দিতে পারেনি। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের বলা হয়, তোমরা বিষয় নির্বাচনের সুযোগ পাচ্ছ। তবে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় পরবর্তীতে জানতে পারবে তোমরা ভর্তি হতে পারবে নাকি পারবে না। ভর্তিচ্ছুদের দাবি, প্রথম থেকেই তাদের একই কথা বলে আসছিল প্রশাসন। আগে বলা হয়েছিল বিষয় পছন্দের পর যাচাই বাছাইয়ে তারা বাতিল হয়ে যাবে। 

এদিকে সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরও অবস্থান কর্মসূচি থেকে সরেনি ওই পরীক্ষার্থীরা। এসময় এক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মা অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তাকে চবি মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ওই পরীক্ষার্থীর নাম সানজিদা ইয়াসমিন। ভর্তিচ্ছুরা স্থান ত্যাগ না করলে একাডেমিক শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার ও প্রক্টরিয়াল বডি বারবার এসে তাদের সরে যেতে বলেন। রাত পৌনে আটটার দিকে তাদের কর্মসূচি স্থগিত করে। 

এ বিষয়ে একাডেমিক শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার এসএম আকবর হোছাইন বলেন, শীঘ্রই বিষয় পছন্দের তালিকা দেওয়া হবে। স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় তারা আবেদন করবে। কিন্তু তারা যোগ্য বিবেচিত হবে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের কোন সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। 

এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বাংলা/এএএ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0183 seconds.