• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৫ নভেম্বর ২০১৯ ১১:৫৪:৪৬
  • ০৫ নভেম্বর ২০১৯ ১১:৫৪:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

হংকংয়ে বিক্ষোভ, ছুরিকাঘাতে আহত ৪

ছবি: সংগৃহীত

হংকংয়ের একটি শপিং মলের বাইরে এক বিক্ষোভকারীর ছুরিকাঘাতে ৪ জন মানুষ আহত হয়েছেন। আহতদের মাঝে একজন রাজনীতিবিদ এবং তার কানের কিছু অংশ কামড়ে তুলে নেয়া হয়েছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম ও পুলিশের বরাতে খবরটি প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা সিএনএন।

৩ অক্টোবর, রবিবার তাইকু শহরে সিটিপ্লাজা মলের বাইরে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। ২ অক্টোবর, শনিবার এই মলের বাইরেই গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভ করেছিল বিক্ষোভকারীরা।

পুলিশের একটি সূত্র সিএনএনকে জানায়, আহত ৪ জনের মধ্যে অভিযুক্ত হামলাকারীসহ একজন মহিলা ছিলেন। এখন তারা শহরের পামেলা ইউদে নেদারসোল ইস্টার্ন হাসপাতালে চিকিৎসারত আছেন। এদের মাঝে ২জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সিএনএন’র সূত্র অনুসারে, আহতদের মধ্যে একজন গণতন্ত্রপন্থী রাজনীতিবিদও ছিলেন, যার কানের কিছু অংশ অজ্ঞাত পরিচয়ধারী সেই আক্রমণকারী কামড়ে ছিঁড়ে নিয়েছে।

হংকংয়ের উচ্চপদস্থ সামাজিক কর্মী জোশুয়া ওয়াং টুইট তার টুইটবার্তায় বলেন, তার ঘনিষ্ঠ সহকর্মী ডা. অ্যান্ড্রু চিউকে আক্রমণ করা হয়েছে এবং তার ‘বাম কানটি নিষ্ঠুরভাবে অর্ধেক করে দেয়া হয়েছে।’

টুইট বার্তাটির সাথে কিছু ছবিও সংযুক্ত ছিল যেখানে, চিউকে তার রক্তাক্ত কান চেপে ধরে বসে থাকতে দেখা যায়।

হংকংয়ে এই মাসের শেষে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার সম্ভাবনা রয়েছে, তাই এই ধরনের হামলা হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। এর আগেও একই ভাবে জেলা কাউন্সিলের গণতন্ত্রপন্থী বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে আক্রমণ করা হয়েছিল বলেও তারা জানান।

উল্লেখ্য, হংকং পুলিশ এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে, সিটিপ্লাজায় জড়ো হওয়া বিক্ষোভকারীরা ‘মলের একটি রেস্তোঁরায় ভাঙচুর করেছে’ তবে তারা ছুরি হামলার তদন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে বিস্তারিত ভাবে প্রকাশ করেননি।

প্রসঙ্গত, সেপ্টেম্বর মাসে হংকংয়ের নেতা কেরি ল্যাম কয়েক মাসের টানা বিক্ষোভের পরে প্রত্যর্পণ বিল প্রত্যাহারের ঘোষণা করে,  যা শহরটিকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভাগ করে এবং অর্থনীতিকে ক্ষতিগ্রস্থ করে। তাই মার্চ মাসে নতুন অর্থনৈতিক বিল পাশের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া হংকংয়ের এই বিক্ষোভ এখনো থামেনি।

বাংলা/এসজে

সংশ্লিষ্ট বিষয়

হংকং ছুরিকাঘাত

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0213 seconds.