• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৭ অক্টোবর ২০১৯ ২২:১৯:৫৯
  • ১৭ অক্টোবর ২০১৯ ২২:১৯:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ট্রাম্পের চিঠি ময়লার ঝুড়িতে ফেলেছিলেন এরদোয়ান

ছবি : সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কুর্দিদের বিরুদ্ধে হামলা না করার অনুরোধ জানিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ানের কাছে একটি চিঠি লিখেছিলেন।  কিন্তু এরদোয়ান সেই চিঠিটি ময়লা ফেলার ঝুড়িতে ফেলে দিয়েছেন বলে জানা গেছে।   

বৃহস্পতিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য প্রকাশিত হয়।  তুরস্কের কর্মকর্তারা বিবিসিকে এই চিঠির ব্যাপারে জানান।  ওই কর্মকর্তারা উল্লেখ করেন, গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের কাছে একটি চিঠি পাঠান। কিন্তু তুর্কি প্রেসিডেন্ট চিঠির বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে সেটিকে ময়লার ঝুড়িতে ফেলে দেন।

৯ অক্টোবর ট্রাম্প এরদোয়ানের কাছে একটি চিঠি লিখেন। এতে তিনি সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা না করার জন্য তুর্কি প্রেসিডেন্টের কাছে অনুরোধ জানান।  তিনি লিখেন, ‘আপনি যদি সঠিক এবং মানবিক উপায়ে এটি সম্পাদন করেন তবে ইতিহাস আপনার পক্ষে থাকবে।  কিন্তু যদি ভালো কিছু না ঘটে তাহলে এটি চিরকাল আপনাকে শয়তান হিসেবে দেখবে।  কঠিন হবেন না। নির্বোধ হবেন না! ’   

তবে এরদোয়ান ট্রাম্পের অনুরোধে কর্ণপাত করেননি।  বরং সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করার পর তিনি ওই অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করা কুর্দি সংগঠন ওয়াইপিজির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন।  

প্রসঙ্গত, কুর্দি সংগঠন ওয়াইপিজিকে সন্ত্রাসী সংগঠন বলে বরাবরই দাবি করে আসছে তুর্কি কর্তৃপক্ষ।  এই ওয়াইপিজির নেতৃত্বে গঠিত বহুজাতিক গ্রুপ সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সকে(সিডিএফ) এতদিন সমর্থন জানিয়ে এসেছিল যুক্তরাষ্ট্র। মূলত সিরিয়ায় জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে এসডিএফের মিত্র ছিল যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ওয়াইপিজির দুর্দিনে যুক্তরাষ্ট্র তাদের ত্যাগ করে। ফলে এরদোয়ানের সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে তাদেরকে একাই লড়তে হচ্ছে তুর্কিদের বিরুদ্ধে।

যদিও সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযান নিয়ে বিশ্বব্যাপী ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে।  বেশিরভাগ বিশ্ব নেতাই এই অভিযানের বিরুদ্ধে। কিন্তু এরদোয়ান এটি চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে অনড়।  এই অঞ্চল থেকে ওয়াইপিজিকে সরিয়ে দিয়ে একটি নিরাপদ এলাকা প্রতিষ্ঠা করাই তার লক্ষ্য।  নিরাপদ এই এলাকায় সিরিয়ার শরণার্থীদের প্রত্যাবাসন করার পরিকল্পনা করেছেন তিনি।

এদিকে বুধবার এরদোয়ান তুরস্কের সংসদে দেয়া এক ভাষণে ঘোষণা করেন, কুর্দি নেতৃত্বাধীন এসডিএফ যদি তাদের সব অস্ত্র ধ্বংস করে ফেলে এবং ওই অঞ্চল ছেড়ে চলে যায় তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে তিনি অভিযান বন্ধ করার নির্দেশ দেবেন।   

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই অভিযান বন্ধের জন্য তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তুর্কিরা যেন কুর্দিদের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করতে রাজি হয় সেজন্য মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স বর্তমানে তুরস্কে অবস্থান করছেন।

বাংলা/এফকে

 

 

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0194 seconds.