• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৩ অক্টোবর ২০১৯ ২২:০৪:১৫
  • ১৩ অক্টোবর ২০১৯ ২২:০৪:১৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

তুরস্কে অস্ত্র রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে ফ্রান্স, জার্মানি

ছবি : সংগৃহীত

তুরস্কে অস্ত্র রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে জার্মানি এবং ফ্রান্স।  সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে ওয়াইপিজি কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযানে যাতে ফ্রান্স এবং জার্মানির তৈরি কোন অস্ত্র ব্যবহৃত হতে না পারে সেজন্য এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।   

শনিবার জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস দেশটির প্রভাবশালী সাপ্তাহিক বিল্ড এম সনতাগ( বিএএমএস) এ এই তথ্য প্রকাশ করেন।   

তিনি বলেন, ‘ সিরিয়ায় ব্যবহৃত হতে পারে এই আশংকায় তুরস্কে রপ্তানি করা সকল সামরিক সরঞ্জামের জন্য ফেডারেল সরকার নতুন কোন অনুমতি প্রদান করবে না। ’

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে জার্মানি তুরস্কে ২৬৮ মিলিয়ন ডলারের অস্ত্র রপ্তানি করে। হিসাব অনুযায়ী, এটি জার্মানির অস্ত্র রপ্তানির এক তৃতীয়াংশ।  

এদিকে জার্মানির পাশাপাশি ফ্রান্সও তুরস্কে অস্ত্র বিক্রি স্থগিত করে দেয়ার কথা জানিয়েছে।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্র এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক যৌথ বিবৃতিতে জানায়, সিরিয়ায় উপর হামলা বন্ধ করার লক্ষ্যে ফ্রান্স তুরস্কে সকল প্রকার অস্ত্র রপ্তানি স্থগিত করার পরিকল্পনা করেছে।   

ফরাসি কর্তৃপক্ষ জানায়, সোমবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা লুক্সেমবার্গে এক বৈঠকে মিলিত হবেন।  তারা তুরস্কে অস্ত্র রপ্তানির ব্যাপারে তাদের অবস্থানের সমন্বয় করবেন।  

উল্লেখ্য, বুধবার তুরস্ক সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দি মিলিশিয়াদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী এক অভিযান পরিচালনা করে।  তুরস্কের জানায়, এই অঞ্চলকে ওয়াইপিজি নামক কুর্দি সন্ত্রাসীদের কবল থেকে মুক্ত করে সিরিয়ার শরণার্থীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করার লক্ষ্যে এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।   

অবশ্য তুর্কি অভিযান শুরুর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প উক্ত অঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন।  ট্রাম্পের এই অবস্থানকে পিঠে ছুরি মারার নামান্তর বলে উল্লেখ করেছে এসডিএফ বা সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স। এসডিএফে ওয়াইপিজি কুর্দিদের সংখ্যাই বেশি।  সিরিয়ায় জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস বিরোধী অভিযানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সহায়তা করেছিল এসডিএফ।

বাংলা/এফকে

 

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.