• বিনোদন ডেস্ক
  • ১০ অক্টোবর ২০১৯ ০৯:৫৩:১১
  • ১০ অক্টোবর ২০১৯ ০৯:৫৩:১১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

পূজায় প্রার্থনা করায় নুসরাতকে হত্যার হুমকি!

ছবি : দ্য হিন্দু থেকে নেয়া

দুর্গাপূজায় প্রার্থনা করে হত্যার হুমকি পেয়েছেন টালিউডি নায়িকা নুসরাত জাহান। স্বামী নিখিল জৈনকে নিয়ে মহাঅষ্টমীর দিনে শাড়ি-সিঁদুর পরে অঞ্জলি দিতেও দেখা যায় তাকে। এর পরপরই তার ছবি ছড়িয়ে পড়লে ভারতের মুসলিম সম্প্রদায়ের কেউ কেউ সমালোচনা শুরু করেন।

গত ১৯ জুন নুসরাত তুরস্কে গিয়ে বিয়ে করেছেন ব্যবসায়ী নিখিল জৈনকে। এবার স্বামীকে নিয়ে এবারের দুর্গাপূজা দারুণভাবে কাটিয়েছেন তিনি। মহাঅষ্টমীতে তাদের কলকাতার সুরুচি সংঘের পূজা মণ্ডপে গিয়ে পূজা দিতেও দেখা যায়। এমনকি চোখ বন্ধ করে অঞ্জলির মন্ত্রপাঠ ও প্রার্থনাতেও অংশ নেন তিনি। এরপর তিনি স্বামীর সঙ্গে ঢাক বাজিয়ে নেচেছেনও।

পূজা মণ্ডপে নুসরাতের কয়েকটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পরই শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা। ইসলাম ধর্মাবলম্বী হয়ে পূজায় অংশ নেওয়ায় তাকে হত্যার হুমকিও দেয়া হয়েছে। ভারতের ন্যাশনাল কংগ্রেসের আসাম রাজ্যের আইটি সেলের এক কর্মী তাকে নুসরাতকে হত্যার হুমকিও দেন। অন্যদিকে পূজায় অংশ নেয়ায় তাকে ইসলাম ত্যাগেরও পরামর্শ দিয়েছেন কেউ কেউ। 

ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের মুফতি আসাদ কাশমী বলেন, ‘তিনি হিন্দু দেবতাকে পূজা দিচ্ছেন, যদিও ইসলামের অনুসারীদের আল্লাহ ছাড়া আর কারও উপাসনা করা নিষেধ। তিনি যা করেছেন তা হারাম।’

নুসরাত তার ধর্মের বাইরে বিয়ে করায় তার নাম-ধর্মও পরিবর্তন করা উচিত বলে মনে করেন এই মুফতি।

তবে এসব নিয়ে একদমই মাথা ঘামাতে নারাজ নুসরাত। তিনি মনে করেন ধর্মবিশ্বাস একান্তই তার ব্যক্তিগত ব্যাপার। নুসরাত বলেন, ‘জন্মসূত্রে আমি মুসলমান এবং স্বামী হিন্দু হওয়ায় উভয় ধর্মের প্রতিই শ্রদ্ধা আছে আমার।’

বাংলা/এসএ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0237 seconds.