• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৮ অক্টোবর ২০১৯ ২৩:৩৯:১২
  • ০৮ অক্টোবর ২০১৯ ২৩:৩৯:১২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে আবরার হত্যার প্রতিবাদ

ছবি : বাংলা

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদ করছে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন, অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে অতিদ্রুত খুনিদের গ্রেপ্তার ও তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। বাংলা'র বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন। 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় :

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশ থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তারা, পরে মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক ঘুরে জয় বাংলা ফটকে গিয়ে শেষ হয়। এরপর জয় বাংলা ফটক সংলগ্ন ঢাকা আরিচা মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করেন তারা। প্রায় এক ঘণ্টার অধিক সময় মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে তারা।

এতে রাস্তার উভয় পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়ে এ পথে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণ।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার যুগ্ন আহ্বায়ক আরিফুল ইসলাম জানান, আবরার হত্যার ঘটনায় বুয়েট কর্তৃপক্ষ শুধু একটা সাধারণ ডায়েরি করেছে। শুধু জিডি করেই এর দায় বুয়েট কর্তৃপক্ষ এড়াতে পারে না। হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে বুয়েট কর্তৃপক্ষকেও মামলা করতে হবে।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় :  

আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) বিক্ষোভ মিছিল করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার পর এই বিক্ষোভ মিছিল হয়।

বর্বরোচিত এ ঘটনায় ব্যথিত শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় :

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে (২১) পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদ ও খুনিদের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ ও ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যলয় কেন্দ্রীয় গ্রন্থগারের সামনে মানববন্ধনের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন তারা।

কর্মসূচি শেষে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগকে সন্ত্রাসী সংগঠন আখ্যা দিয়ে নিষিদ্ধ করাসহ ৫ দফা দাবি জানান। দাবিগুলো হচ্ছে- ১) আবরার হত্যার সঙ্গে জড়িদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ২) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সব দুর্নীতি ও অনিয়ম বন্ধ করতে হবে। ৩) দেশবিরোধী সব চুক্তি বাতিল করতে হবে এবং ৪) প্রশাসনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় : 

আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা পাঁচ দফা দাবি পেশ করেন। মঙ্গলবার বিকেলের দিকে চট্টগ্রামের ষোলশহর স্টেশন চত্বরে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও চট্টগ্রাম কলেজ, আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, মহসিন কলেজ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা যোগদান করেন। 
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন আমির হোসেন জুয়েল, কামরুন্নাহার, নিজাম উদ্দিন, নুসরাত লুভাসহ অনেকে।

এসময় বক্তারা বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের পরিবর্তে উল্টো মেধাবী আবরার ফাহাদকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। অথচ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এর ৩০ ঘণ্টা পরে ক্যাম্পাসে এসেছেন। আমরা চাই এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার হোক।

বক্তারা আরও বলেন, আমরা দেখেছি কলেজ, মাদ্রাসা কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়সহ কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীই ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের হাতে নিরাপদ না। ফেনীর মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত হত্যাসহ রাবির শিক্ষার্থীকে হাতুড়ি পেটা এর বড় উদাহরণ। কাজেই সকল ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবিসহ আমাদের ৫ দফা দাবি আদায় না হলে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো। 

পাঁচ দফা দাবিগুলো হলো: সকল অপরাধীকে শনাক্ত করে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতকরণ, অপরাধীদের বুয়েট থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করতে হবে, গত বছরের অক্টোবরের ঘটনাসহ পূর্বের সকল ঘটনার তদন্ত করতে হবে, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দোষীদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে, আবরার হত্যার ও তার পরিবারের সমস্ত ব্যয় বুয়েটের প্রশাসনকে বহন করতে হবে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় : 

আবরার হত্যাকারীদে শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার বিকাল ৪টা থেকে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের পাদদেশে প্রতিবাদ সমাবেশ করে তারা। 

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেডাম শেষে আবরার হত্যাকারীদে শাস্তির দাবিতে বিকাল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়া হল মোড়ে জড়ো হয় শিক্ষার্থীরা। সেখান থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বিভিন্ন হল প্রদক্ষিণ করে প্রধান ফটকের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের পাদদেশে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। 

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, ইতোপূর্বে আবরাবে মত হত্যাকাণ্ডের সঠিক বিচার হয়নি। এ কারণে আবরার হত্যার সাথে জড়িতদের সকলের এমন শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে যাতে করে ভবিষ্যতে এমন ঘটনা না ঘটে। পাশাপাশি দেশ বিরোধী সকল চুক্তি বাতিলের দাবি জানান বক্তারা।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় :

আবরার ফাহাদকে হত্যার প্রতিবাদে মোমবাতি প্রজ্বলন কর্মসূচি পালন করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ সময় তারা দাড়িয়ে মোমবাতি প্রজ্বলন করে পরে শহীদ মিনার থেকে বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ একাত্মতা পোষণ করে।

পরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে আবরার হত্যার প্রতিবাদ করে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা বক্তব্য রাখেন। 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘আবরার ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনের প্রথম শহীদ। নূর হোসেনের আত্মত্যাগের মধ্যে দিয়ে যেমন এদেশ থেকে স্বৈরচারী সরকারের পতন হয়েছিল তেমনি আবরার ফাহাদের শহীদ হওয়ার মধ্যে দিয়ে এদেশ থেকে ভারতীয় আগ্রাসন দূর হবে। আবরারসহ পূর্বে যত হত্যাকাণ্ড হয়েছে সবগুলোর সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা।’ 

প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী আরেফিন রফিক বলেন, ‘আবরারকে হত্যাকারী কোনো দলের মতের হতে পারেনা। হত্যাকারীরা যে দলেরই হোক না কেন বঙ্গবন্ধুর এদেশে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। এদেশের ছাত্রসমাজের বিরুদ্ধে কেউ দাঁড়াতে পারেনি। এই অপশক্তিও দাঁড়াতে পারবে না।’

সমাবেশ শেষে বক্তারা আগামীকাল বুধবার (৯ অক্টোবর) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কাঁঠাল তলায় মানববন্ধনের ঘোষণা দেন।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়:

আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বেরোবি ক্যাম্পসের সামনে ঢাকা-কুড়িগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন শতাধিক শিক্ষার্থী।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতসহ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে খুনিদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করতে হবে।

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় :

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার বিচার দাবি করেছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার বিকেল ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন তারা। আবরারের হত্যাকারীদের বিচার চেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় গেটের সামনে শিক্ষার্থীরা দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করেন। এর আগে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করেন তারা।

ঘণ্টাব্যাপী দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে রাখায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে দুই ধারে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : 

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের নৃশংস হত্যাকাণ্ডেরর বিচার চেয়ে মোমবাতি প্রজ্বলন কর্মসূচি পালন করেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।  

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়বাংলা চত্বরে তারা এই কর্মসূচি পালন করেন। এ সময় তারা আবরারের হত্যকারীদের মৃত্যুদণ্ড দাবি করেন। 

এ সময় আইন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আবরারের মত একজন মেধাবী শিক্ষার্থী দেশের সম্পদ কিন্তু ছাত্রলীগ নামধারী কিছু কুলাঙ্গার তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। আমরা এই হত্যার তীব্র নিন্দা জানাই এবং এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত সকলের মৃত্যুদণ্ড দাবি করছি। তিনি বলেন, একজন হত্যাকারীর পরিচয় কেবলই একজন হত্যাকারী এবং যদি কেউ সত্যিই বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগের আদর্শ ধারণ করে তার দ্বারা এমন ঘৃণ্য কাজ করা সম্ভব নয় বলে আমার বিশ্বাস।’

এ সময় তারা আগামীকাল (বুধবার)  সকাল সাড়ে ৯টায় মানববন্ধন কর্মসূচী ঘোষণা কিরেন। 
 
বাংলা/এএএ

সংশ্লিষ্ট বিষয়

আবরার হত্যা প্রতিবাদ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0204 seconds.