• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ০৫ অক্টোবর ২০১৯ ১১:৩১:২১
  • ০৫ অক্টোবর ২০১৯ ১৮:১৭:৩২
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

সালাহর প্রেরণায় মদ-জুয়া ছেড়ে মুসলিম হলেন ইংরেজ তরুণ

ছবি : সংগৃহীত

ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলের হয়ে খেলা মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহর কাছ থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন এক ইংরেজ তরুণ। বেন বার্ড নামের ওই তরুণ একসময় বুঁদ থাকতেন মদ-জুয়ায়। 

এক সময় ইংল্যান্ডের নটিংহ্যাম ফরেস্ট ফুটবল ক্লাবে মাঝে মাঝে টিকিট বিক্রি করতেন বেন। যে সূত্রেই ফুটবলারদের কাছ থেকে দেখার সুযোগ মেলে তার। তখনই তিনি সালাহকে কাছ থেকে দেখেন। সালাহর আচরণে মুগ্ধ হয়ে তাকে অনুসরণ করতে শুরু করেন। তার ভেতর নিজের প্রতিচ্ছবি যেন দেখতে পান বেন। এরপরই ধীরে ধীরে তার মনোজগতে পরিবর্তন আসতে থাকে। ফলে একসময়ের ইসলামবিদ্বেষী বেন নিজেই হয়ে যান মুসলিম।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান বিষয়টি নিয়ে তার একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশ করেছে। এতে নিজের জীবনের নানা ঘটনার বিবরণ দেন বেন বার্ড।

সাক্ষাতকারে বেন বলেন, ‘জ্ঞান হওয়ার পর থেকেই আমি ইসলামকে ঘৃণা করে এসেছি। ইদানীং সেখান থেকে সরে এসেছি। আমি মুসলিম হয়েছি। বাকি জীবনটা খাঁটি মুসলমান হিসেবে কাটাতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘সালাহর ভেতর আমি নিজেকে খুঁজে পেয়েছি। তিনি যেভাবে জীবনযাপন করে, যেভাবে মানুষের সঙ্গে কথা বলেন- সেটি আমার হৃদয়ে দাগ কাটে এবং পরিবর্তন আনে।’

বেন আরো বলেন, ‘এখন এটা বলতে লজ্জা হয় আমার, আমি আগে ভাবতাম ইসলামি সংস্কৃতি ও মুসলিমরা পশ্চাৎপদ; তারা নতুন কিছু গ্রহণ করতে পারে না। আমি ভাবতাম, মুসলিমরা বদ্ধ ঘরে থাকা হাতির মতো। মুসলিমদের প্রতি ঘৃণা কাজ করতো।’

মোহামেদ সালাহর কাছ থেকে প্রেরণা নেয়ার আগেই অবশ্য তার মধ্যে মুসলিমদের সম্পর্কে ধারণা বদলাতে শুরু করে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় বেনের সাথে বন্ধুত্ব হয় মধ্যপ্রাচ্যের কয়েক শিক্ষার্থীর। পড়াশোনার সময়ই একটি কোর্সে তাকে ‘পাশ্চাত্যের ইসলাম ভাবনায় মোহামেদ সালাহর প্রভাব’ মূল্যায়ন করতে তাকে একটি অ্যাসাইনমেন্ট দেয়া হয়। তখনই ইসলাম ও মুসলিমদের জীবনধারা সম্পর্কে পড়াশোনা করেন বেন। এতেই তার দৃষ্টিভঙ্গী পাল্টে যায়।

বেন বলেন, ‘কোরআন পড়ার সময় মানুষ ভিন্ন কিছু দেখে, যেটি মিডিয়ায় সবসময় আসে না। মুসলিম সম্প্রদায়ে আমি নতুন, এখনো শিখছি। এটা কঠিন। এটা জীবনধারার পরিবর্তন।’

ইসলাম গ্রহণের পর মদ্যপান ও জুয়া থেকেও দূরে সরে গেছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে বেন বলেন, ‘এখন আমার হৃদয়টা ভালো আছে।’

নটিংহ্যাম ফরেস্ট ফুটবল দলের সমর্থক হলেও বেন লিভারপুলের হয়ে খেলা সালাহর পাঁড় ভক্ত। তার সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছাও আছে বেনের। আর সালাহর সঙ্গে দেখা হলে তিনি বলতে চান, ‘শুকরান’!

বাংলা/এসএ

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়

মোহামেদ সালাহ লিভারপুল

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0185 seconds.