• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০২ অক্টোবর ২০১৯ ২১:১৯:২৯
  • ০২ অক্টোবর ২০১৯ ২১:১৯:২৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

শিক্ষকের চুমুতে অজ্ঞান ছাত্রী!

ছবি : সংগৃহীত

অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে ছাত্রীর বাবা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে সাতক্ষীরার আশাশুনিতে।

মেয়েটির পরিবার সূত্রে জানা গেছে, অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রী বড়দল দারুসসুন্নাহ আলিম মাদ্রাসার শিক্ষক আনারুল ইসলামের কাছে প্রাইভেট পড়তো। প্রতিদিন রাত ৯টার সময় পড়া শেষ হলে ছাত্রীর মা তাকে বাড়িতে নিয়ে যেতেন। কিন্তু গত রবিবার রাত ৮টার দিকে পড়ানো শেষ করে দেন প্রাইভেট শিক্ষক। পরে মেয়েটিকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে সঙ্গে করে ছাত্রীর বাড়ির দিকে রওনা দেন। পথিমধ্যে কিছুদূর গিয়েই শিক্ষক তাকে জাপটে ধরেন। এরপর ছাত্রীর স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে স্পর্শ করেন। এলোপাতাড়ি চুমু দিতে দিতে ছাত্রীর পায়জামা খুলে ফেলার একপর্যায়ে মেয়েটি চিৎকার দিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে।

এদিকে ছাত্রীর ওই চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে জ্ঞান ফিরলে মেয়েটি কাঁদতে কাঁদতে শিক্ষকের ওই জঘন্য কর্মকাণ্ডের কথা জানায়।

একাধিক প্রতিবেশী মাদ্রাসা শিক্ষক আনারুল ইসলাম সম্পর্কে জানান, এর আগেও একাধিক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি বা ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত শিক্ষক আনারুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়। এদিকে দারুসসুন্নাহ আলিম মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ জানায় শিক্ষক আনারুল ইসলাম ছুটিতে আছেন।

এ ব্যাপারে আশাশুনি থানার ওসি আবদুস সালাম বলেন, ‘ওই ছাত্রীর বাবা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এসআই হাসানুজ্জামানকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0206 seconds.