• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০২ অক্টোবর ২০১৯ ১১:০১:৪৭
  • ০২ অক্টোবর ২০১৯ ১১:০১:৪৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

এমসিসির রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাঙ্গাকারা

কুমার সাঙ্গাকারা। ছবি : সংগৃহীত

চলতি বছরের মে মাসে লর্ডসে এমসিসির বার্ষিক সভায় কুমার তার মনোনয়নপত্র জমা দেন। কুমার সাঙ্গাকারা বলেছিলেন, ‘আমি এমসিসির সাথে ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজ করতে ইচ্ছুক। যেসব সম্প্রদায়ের জন্য এমসিসি স্থানীয়ভাবে, জাতীয় ও বিশ্বব্যাপী  কাজ করে আমি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হলে সেসবের প্রসার আরো বৃদ্ধি করার চেষ্টা করবো।’       

২০০৫ সালে সুনামি রিলিফ ম্যাচে লর্ডসে আন্তর্জাতিক একাদশের বিপক্ষে এমসিসির হয়েও খেলেছিলেন তিনি। এই ম্যাচটি থেকে প্রাপ্ত উপকরণগুলি শ্রীলঙ্কার সেনিগামায় এমসিসি সেন্টার অব এক্সিলেন্স স্থাপনের জন্য ফাউন্ডেশন অফ গডনেস ব্যবহার করেছিল।

তিনি ২০১১ সালে একটি শক্তিশালী এবং স্মরণীয় এমসিসি স্পিরিট অফ ক্রিকেট কাউড্রি লেকচার প্রদান করেছিলেন। ২০১২ সালে, তিনি ক্লাবটির অনারারি লাইফ মেম্বারশিপ পেয়েছিলেন। একই বছরে, তিনি এমসিসির ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট কমিটিতে যোগদান করেছিলেন এবং সক্রিয় সদস্য হিসাবে রয়েছেন।

এমসিসির প্রধান নির্বাহী ও সেক্রেটারি গাই ল্যাভেন্ডার বলেন, ‘আমরা আনন্দিত যে কুমার আজ তার অবস্থান গ্রহণ করছেন এবং আমাদের প্রথম আন্তর্জাতিক রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত করার জন্য অ্যান্টনি ওয়ারফোর্ডকে ধন্যবাদ জানাই। অ্যান্টনি ব্যতিক্রমী সময়ের মধ্যে এক দুর্দান্ত রাষ্ট্রপতি ছিলেন এবং তার স্ত্রী মেরিয়ান ওয়ারফোর্ডের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে তারা একটি অবিচ্ছিন্ন বছর ধরে ক্লাবটিতে দুর্দান্ত অবদান রেখেছেন। আমার কোন সন্দেহ নেই যে কুমার ওয়ারফোর্ডের একজন যোগ্য উত্তরসূরি হবেন এবং আমাদের ক্লাবকে ও রূপকল্পকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করবেন।’

বিদায়ী এমসিসির সভাপতি অ্যান্টনি ওয়ারফোর্ড বলেন, ‘আগামী বারো মাস ধরে এমসিসির সভাপতির ভূমিকা নিতে কুমার সাঙ্গাকারার চেয়ে ভাল আর কেউ নেই। তার বিশ্বাস কুমার কেবল লর্ডসে নয়, ক্লাবের বৈশ্বিক স্থিতিতেও ধারাবাহিকভাবে প্রভাব ফেলতে সক্ষম হবেন। এমসিসির প্রথম অ-ব্রিটিশ রাষ্ট্রপতি হিসাবে তাঁর বিশ্বব্যাপী আবেদন তাকে এই ক্ষেত্রে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে সক্ষম করবে।’

বাংলা/বিডি/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0237 seconds.