• ক্রীড়া ডেস্ক
  • ০১ অক্টোবর ২০১৯ ০১:০১:১৬
  • ০১ অক্টোবর ২০১৯ ০১:০১:১৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

২০২০ মৌসুমের প্রথমার্ধেই ফাহিমকে পাচ্ছে নর্দাম্পটনশায়ার

ছবি : সংগৃহীত

১৯৯০ সালের জ্যাকেট ব্লাস্টে স্টিলব্যাকসের হয়ে অলরাউন্ডার ক্লাবের যৌথ নেতৃত্বাধীন উইকেট শিকারীকে ১৯টি গড়ে গড়ে ১১টি স্কাল্প দিয়ে শেষ করেছেন। পাকিস্তানের সাদা বলের দলগুলোতে নিয়মিত ফাহিমও প্রথম শ্রেণির একটি দুর্দান্ত রেকর্ড এবং প্রধান কোচকে সম্মানিত করে ডেভিড রিপলে বিশ্বাস করেন ফাহিম ব্যাট ও বল দুটোই দলে দলে ভূমিকা রাখবে। 

রিপলি বলেছিলেন, ‘বর্তমানে আমাদের কাছে যা আছে তার থেকে তিনি কিছুটা আলাদা বুদ্ধিমান, তিনি কিছুটা বেশি গতি পেয়েছেন, তিনি একজন সুইং বোলার এবং তিনি ৩০ এর ব্যাটিং গড় পেয়ে গেছেন।’

রিপ্লে বলেছেন, ‘আমি মনে করি ফাহিমের মূল উপাদানটি যদিও এই বছর আমরা তাকে সাদা বলের ক্রিকেটের জন্য স্বাক্ষর করেছি, তিনি ঠিকঠাক ব্যাটিং করতে পারেন তা দেখতে বেশ পরিষ্কার ছিল। তিনি পাকিস্তানের হয়ে টেস্ট ম্যাচ ক্রিকেট খেলেছেন তাই তিনি প্রকৃত তিন ফর্ম্যাট ক্রিকেটার।’

লাল বলের অধিনায়ক অ্যাডাম রসিংটন রিপলির চিন্তাধারা প্রতিধ্বনিত করেছিলেন।

রিপ্লে বলেন, ‘আমি মনে করি তিনি অবশ্যই একজন সত্যিকারের অলরাউন্ডার, তিনি খুব ভাল ব্যাটসম্যান এবং যদিও টি-টোয়েন্টিতে আমরা তাকে অনেকবার ব্যাট করতে না পেলাম আমরা জানি তিনি ভালই স্লট করবেন।’

‘তিনি অত্যন্ত দক্ষ এবং আমাদের বোলারদের কাছে কিছুটা আলাদা প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের চেয়ে এখানে কিছুটা বেশি বোলার বান্ধব হওয়ার ঝোঁক নেই, বিশেষত ডিউকস বলের সাথে তাই আশা করা যায় প্রথম দিকে মৌসুমের উইকেটে তার জন্য কিছুটা হলেও থাকবে।’

নর্থাম্পটনশায়ারের উদ্বোধনী জুটি বেন স্যান্ডারসন এবং ব্রেট হাটন এই বছর দুর্দান্ত পারফর্ম করেছে, তাদের মধ্যে প্রায় ১০০ উইকেট ভাগ করে নিয়েছে। ডেভিড রিপলি আশা করছেন, যখন পরিস্থিতি ব্যাটসম্যানদের পক্ষে যেতে শুরু করবে তখন ফাহিম তাদের প্রশংসা করবে এবং অতিরিক্ত কিছু দেবে। 

‘অতিরিক্ত গতি তিনি পেয়েছেন তা মূল বিষয়, আমাদের কাছে সীম বোলারদের খুব সূক্ষ্ম একটি গ্রুপ পাওয়া গেছে যা আমাদের বিভাগ ১ এ নিয়েছে এবং সেটি বদলাবে না। তবে যখন এটি কিছুটা চাটুকারপূর্ণ এবং খেলাটির শেষ ২ দিন এবং উইকেট থেকে কিছুটা নিপ চলে গেছে, কিছুটা গতি এবং সুইং এবং বোলিং ইয়ার্কার্সের সাথে তখন আমি তাকে সত্যিকারের হুমকি হিসাবে দেখতে পাচ্ছি যখন উইকেট তোষামোদ হয়।’

‘পাকিস্তানের সীম বোলারদের যে ঝোঁক রয়েছে তা হ'ল যখন এই উইকেটগুলি খুব সমতল এবং বেশ ধীর গতিতে থাকে তখন লোকদের বের করার উপায় খুঁজে পাওয়া যায়। এটি সুইং সহ, এটি ইয়ার্কার্স এবং বাউন্সারদের সাথে, এটি বিপরীত সুইং সহ।’

এনওসি ছাড়পত্র সাপেক্ষে ২০২০ এর ভাইটালিটি ব্লাস্ট গ্রুপ পর্যায়ে শেষ না হওয়া পর্যন্ত ফাহিম সব ধরণের ক্রিকেটে নির্বাচনের জন্য উপলব্ধ।

বাংলা/বিডি

সংশ্লিষ্ট বিষয়

নর্দাম্পটনশায়ার

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0220 seconds.