• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:৩২:২১
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:৩২:২১
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ইমরান খানের বিরুদ্ধে ভারতে মামলা

ছবি : সংগৃহীত

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে ভারতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ‘আপত্তিকর’ বক্তব্য দেয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এই মামলাটি করা হয়। ২৮ সেপ্টেম্বর, শনিবার সুধীরকুমার ওঝা নামের এক আইনজীবী মামলাটি দায়ের করেন।

ভারতের বিহার প্রদেশের মুজফ্‌ফরনগরের একটি আদালতে ইমরান খানের বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এই সময় এমন খবর প্রকাশ করে।

আইনজীবী সুধীরকুমার ওঝা বলেন, ‘সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আপত্তিজনক মন্তব্য করেছেন। পাশাপাশি তিনি তার বক্তব্যে ভারতকে পরমাণু যুদ্ধের হুমকিও দিয়েছেন।’ এজন্য পাক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর করার অনুমতি দেয়ার আবেদন জানান তিনি।

তিনি দাবি করেন, ভারত শাসিত কাশ্মীরে স্বায়ত্তশাসন সংক্রান্ত ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য উস্কানিমূলক ছিল। এতে দেশের সংহতি নষ্ট হবে।

জাতিসংঘে দেয়া ভাষণে কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতির বিষয়ে ইমরান খান বলেছিলেন, ‘মনে করে নিচ্ছি, আমি কাশ্মীরের জেলে রয়েছি। শুনছি ভারতীয় সেনারা বাড়িতে হানা দিচ্ছে, ধর্ষণ করছে। আমি কি সেটা মানতে পারতাম? আমি বন্দুক তুলে নিতাম।’

তিনি আরো বলেন, ‘ভারত সরকার কাশ্মীরিদের সে দিকেই নিয়ে যাচ্ছে আর আমাদের ঘাড়ে দায় চাপাচ্ছে। ইসলাম নয়, ন্যায়বিচার বঞ্চিত করা এবং নিপীড়নের কারণেই জঙ্গিবাদের সৃষ্টি হয়।’

পরমাণু যুদ্ধের শঙ্কা প্রকাশ করে পাকিস্তানের এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রথাগত যুদ্ধ শুরু হলে যেকোনো কিছু ঘটতে পারে। যখন দুটি পরমাণু শক্তিধর দেশ পরস্পরের মুখোমুখি এসে দাঁড়ায়, তখন ফলাফল সীমান্তেই আটকে থাকে না। এখন এটা জাতিসংঘের কাছে পরীক্ষা, তারা কী চাইছে।’

ইমরান খানের বক্তব্যের সমালোচনা করে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফার্স্ট সেক্রেটারি বিদিশা মৈত্র বলেন, ‘যে ধরনের শব্দ ইমরান প্রয়োগ করেছেন, তার মধ্য দিয়েই তার মধ্যযুগীয় মানসিকতার প্রতিফলন ঘটেছে যা একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে একেবারেই অনভিপ্রেত।’

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0232 seconds.