• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০৯:৩৪:১৫
  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০৯:৩৪:১৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

সৌদির ৩ ব্রিগেড ধ্বংস, কয়েক হাজার সেনা আটকের দাবি হুথিদের

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি। ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

সৌদি আরবের সেনাবাহিনীর উপর বড় ধরণের হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ সমর্থিত সেনাবাহিনী। এই হামলায় সৌদি সামরিক বাহিনীর তিনটি ব্রিগেড পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে। এছাড়াও আটক করা হয়েছে কয়েক হাজার সেনা, সামরিক সরঞ্জাম ও সাঁজোয়া যান।

২৮ সেপ্টেম্বর, শনিবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি এমন তথ্য নিশ্চিত করেন। রয়টার্স, আল জাজিরা ও পার্সটুডে এমন খবর প্রকাশ করে।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি বলেন, ‘ইয়েমেন সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের নাজরান শহরে ৭২ ঘণ্টাব্যাপী হামলাটি চালানো হয়। হামলায় ইয়েমেনের ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটগুলো সমর্থন যুগিয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘হুতিরা সৌদি সেনাবাহিনীর বহু কর্মকর্তাসহ কয়েক হাজার সৈন্য, বিপুল পরিমাণ সামরিক সরঞ্জাম ও কয়েকশ সাঁজোয়া যান আটক করেছে। এ সময় আগ্রাসী বাহিনীর শতাধিক সেনা হতাহত হয়েছে।’ ২৯ সেপ্টেম্বর, রবিবার আটক সৌদি সেনাদের ছবি এবং ভিডিও ক্লিক আল-মাসিরা টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হবে বলেও জানান তিনি।

ইয়াহিয়া সারি আরো বলেন, ‘ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর কয়েকটি বিশেষ ইউনিট, সেনাবাহিনী ও তাদের মিত্ররা এলাকায় হামলা চালিয়ে নাজরানের কয়েকটি কয়েকশ’ বর্গকিলোমিটার এলাকার নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে।’

২০১৫ সালের মার্চ মাসে ইয়েমনে সৌদি আরব ও তার মিত্রদের নিষ্ঠুর সামরিক আগ্রাসন শুরু পর এটিকে ‘খোদার দেয়া সবচেয়ে বড় জয়’ বলেও অভিহিত করেছেন ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর এই মুখপাত্র।

এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর সৌদি আরবের ‘আবকাইক’ ও ‘খুরাইস’ তেল শোধনাগারে ১০টি পাইলটবিহীন বিমান বা ড্রোনের সাহায্যে হামলা চালিয়েছিল হুতি বিদ্রোহীরা। হামলার কারণে দিনে অপরিশোধিত তেলের উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল কমেছে, যা সৌদির মোট উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক। এমনকি সৌদি আরবের তেল উৎপাদন ও রপ্তানিতে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে।

প্রসঙ্গত, ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনকে দমন করে সৌদি আরব সমর্থিত ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মানসুর হাদিকে পুনরায় ক্ষমতায় বসানোর জন্য ২০১৫ সালের ২৬ মার্চ দেশটিতে ভয়াবহ আগ্রাসন শুরু করে সৌদি আরব। গত প্রায় সাড়ে চার বছর ধরে টানা বোমাবর্ষণ ও গণহত্যা চালিয়েও রিয়াদ তার একটি লক্ষ্যও অর্জন করতে পারেনি।

বাংলা/এনএস

সংশ্লিষ্ট বিষয়

সৌদি আরব হুথি ইয়েমেন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0206 seconds.