• ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২২:৩১:৪৬
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২২:৩১:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

সহজ ম্যাচকে জটিল করে জিতলো টাইগাররা

ছবি : সংগৃহীত

সহজ লক্ষ্যকে জটিল করে জয় তুলে নিল সাকিব বাহিনী। মূলত আজকের ম্যাচে ক্যাপ্টেনস নক খেলে সাকিবই জিতিয়েছেন দলকে। যদিও আজকের ম্যাচ ছিল সিরিজের নিয়ম রক্ষার। কিন্তু তার চাইতে গুরুত্বপূর্ণ  ছিল টাইগারদের জন্য। শেষ পর্যন্ত সাকিবের অনবদ্য ৭০ রানের ইনিংসে ভর করে আফগানদের বিপক্ষে ৪ উইকেটের জয় তুলে নিল টাইগাররা। 

জয়ের লক্ষ্যে টাইগারদের সামনে লক্ষ্য ছিল মাত্র ১৩৯ রানের। এই সামান্য লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে ২ উইকেট হারায় টাইগাররা। তারপর বাংলাদেশ ৫ উইকেট হারিয়ে আবারো বিপর্যয়ে পড়ে। শুরুর বিপর্যয়ের পর দলের হাল ধরেন সাকিব-মুশি জুটি।

মুশফিক আউট হলে মাঠে নামেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তারপরই মাহমুদুল্লাহ ৬ রানে আউট হন, ব্যাটিংয়ে উঠেন সাব্বির। তিনি ১ রান করেই আউট হলে পূণরায় বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ।

সাকিব একপাশ আগলে রেখে সে বিপর্যয় কাটিয়ে দলের জন্য লড়াই করেন একাই। ৪৫ বলে অপরাজিত ৭০ রান করে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি।

এর আগে শুরুতে  লিটন দাস করেন ১০ বলে ৪ ও শান্ত ৮ বলে ৫ রান করে আউট হন। আফগানদের হয়ে উইকেট দুটি নিয়েছেন নাভিন উল হক ও মুজিব। দু’জনই ক্যাচ আউটের শিকার হন। তারপর সাকিব-মুশফিক মিলে জুটি গড়ে তোলেন । তাদের জুটিতে দলীয় ফিফটি আসে। রানের গতি যখন এগিয়ে যাচ্ছিল ঠিক তখনই অপ্রয়োজণীয় একটি শট খেলতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন মুশফিকুর রহিম। করিম জানাতের বলে শাফিউল্লার হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে মুশফিক করেন ২৬ রান। মুশফিকের পর মাহমুদুল্লাহ ৬ রানে এলবিডব্লিউ , সাব্বির ১ ক্যাচ ও আফিফ হোসেন ২ রানে বোল্ড হয়ে যান।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে শুরুতে টস জিতে আফগানদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। নির্ধারিত ওভার শেষে ৭ উইকেটে আফগানদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৮ রান।

শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ওপেনিং জুটিতে রানের ঝড়ে উড়তে থাকে আফগানরা। আফগানদের অবশেষে আটকাতে সমর্থ হয় টাইগার বোলাররা। শুধু আটকেই খান্ত হয়নি তারা। পরপর আফগানদের মিডল অর্ডারের ৫ উইকেট তুলে নিয়ে আফগান ব্যাটসম্যানদের লাগাম টেনে ধরেছেন সাকিব -আফিফরা।   

শুরুতেই  উইকেটের খাতা খুলেন আফিফ। মেডেন ওভারে নিলেন জোড়া উইকেট। তারপর সাকিব নেন আগের ম্যাচের রান মেশিন মোহাম্মদ নবিকে। নবি আউট হন ৪ রানে। ওপেনিংয়ে আসেন রহমাতুল্লাহ গুরবাজ ও হজরতুল্লাহ জাজাই। কোন উইকেট না হারিয়েই তারা তুলে নেন অর্ধশত। যখন টাইগার বোলাররা কোনো ভাবেই পেরে উঠছে না। তখন আঘাত হানলেন দলে সুযোগ পাওয়া আফিফ হোসেন। বলে এসেই ম্যাডেন ওভারে দুই উইকেট তুলে নিয়ে আফগানদের লাগাম টেনে ধরল আফিফ হোসেন। তুলে নেন হজরতুল্লাহ জাজাই(৪৭) ও আসগর আফগানকে(০)। মোস্তাফিজ তুলে নেন রহমতউল্লাহ গুরবাজকে। তিনি করেন ২৭ বলে ২৯ রান। এরপরই সাকিবের আঘাত, তার বলে এলবি হয়ে মাত্র ৪ রানে আউট হন মোহাম্মদ নবি। ১৫ তম ওভারে এসে সাইফউদ্দিন তুলে নেন ১৪ রান করা নাজিবুল্লাহ জাদরানকে।

শফিকউল্লাহ শফিক ও রশিদ খান থকেন অপরাজিত। শফিক ২৩ ও রশিদ খান করেন ১১।

এর আগে এক পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ। গত ম্যাচে অভিষেক হওয়া লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব আঙুলের চোটে এই ম্যাচে খেলতে পারছেন না।

স্পিনার বিপ্লবের পরিবর্তে একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান একাদশে নিয়েছে টিম ম্যানেজম্যান্ট। দলে ঢুকেছেন সাব্বির রহমান।

অপরদিকে আফগানিস্তান দলে এসেছে দুটি পরিবর্তন। ফজল নিয়াজাই এবং দৌলত জাদরান খেলছেন না। তাদের পরিবর্তে অভিষিক্ত নাভিন উল হক এবং করিম জানাত একাদশে এসেছেন।

আফগানিস্তান: ১৩৮/৭, ওভার ২০

হযরতউল্লাহ জাজাই ৪৭, রহমতউল্লাজ গুরবাজ ২৭, শফিকউল্লাহ শফিক ২৩

আফিফ হোসেন: ২ উইকেট

সংশ্লিষ্ট বিষয়

টাইগাররা ম্যাচ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0217 seconds.