• বিদেশ ডেস্ক
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৩:৩৮:৫১
  • ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৪:০৭:২৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ইরান ঠেকাতে সৌদিতে যাচ্ছে মার্কিন সেনা

ছবি : সংগৃহীত

মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের অব্যাহত হুমকি মোকাবেলায় সৌদি আরবে সেনা, অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। গত ১৪ সেপ্টেম্বর, শনিবার সৌদির রাষ্ট্রায়ত্ব তেল কোম্পানি আরামকোর বড় একটি তেলক্ষেত্রে ভয়াবহ হামলা হয়। এর প্রেক্ষিতে সৌদির তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ ঘটনার জেরেই মিত্র সৌদি আরবে যুক্তরাষ্ট্র আরো পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার সাংবাদিকদের সৌদিতে সেনা মোতায়েনের খবর নিশ্চিত করেছেন। আত্মরক্ষার কৌশল হিসেবেই সৌদিতে সেনা পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি। তবে ঠিক কতজন সেনা মোতায়েন করা হবে তা জানাননি মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

গতকাল ২০ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ডকে সাথে নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সৌদি আরবে সেনা মোতায়েনের ঘোষণা দেন মার্ক এসপার। সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত তাদের কাছে সাহায্য চেয়েছে বলেও জানান তিনি।

ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত হুথি বিদ্রোহীরা তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলার দায় স্বীকার করেছে। তবে এ হামলার নেপথ্যে ইরান আছে বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র। আর সৌদি আরবের দাবি, যে ড্রোন দিয়ে হামলা হয়েছে তা ইরানের তৈরি। সৌদি ও যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগ বরাবরের মতো অস্বীকার করেছে ইরান।

এমন অবস্থায় ইরানে সামরিক অভিযান চালানোর ব্যাপারে ট্রাম্প প্রশাসন চিন্তা-ভাবনা করছে বলেও জানা গেছে। পাল্টা ইরানও তাদের ভূমিতে হামলা হলে সর্বাত্মক হামলার মাধ্যমে তা প্রতিরোধের হুমকি দিয়ে রেখেছে।

গতকাল ইরানের ওপর সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওভাল অফিসে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘ইরানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও সার্বভৌম তহবিলের ওপর শিগগিরই নিষেধজ্ঞা আরোপ করা হবে।’

বাংলা/এসএ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0215 seconds.