• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:২০:৪৫
  • ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:২০:৪৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

সিরিয়ার অখণ্ডতা রক্ষার আহ্বান জানালো ইরান-রাশিয়া-তুরস্ক

হাসান রুহানি, ভ্লাদিমির পুতিন, রজব তাইয়্যেব এরদোগান। ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

সিরিয়ার সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা রক্ষা করার জন্য বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানালো ইরান, রাশিয়া ও তুরস্ক। এই তিন দেশের প্রেসিডেন্টদের শীর্ষ বৈঠক শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান। তুরস্কের রাজধানী ইস্তাম্বুলে ওই বৈঠকে অনুষ্ঠিত হয়। এটি ছিল নেতাদের সিরিয়া বিষয়ক পঞ্চম শীর্ষ সম্মেলন।

১৬ সেপ্টেম্বর, সোমবার রাতে তিন দেশের শীর্ষ নেতাদের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এমন খবর প্রকাশ করেছে পার্সটুডে।

১৪টি ধারাবিশিষ্ট বিবৃতিতে সিরিয়ার পুনর্গঠনে সহযোগিতা করা এবং দেশটির জনগণের জন্য মানবিক ত্রাণ পাঠানোর ক্ষেত্রে আরো বেশি সক্রিয় হওয়ার জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান শিগগিরই সিরিয়া বিষয়ে ইরানের রাজধানী তেহরানে পরবর্তী বৈঠকে বসার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

ওই যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘সিরিয়ার স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা রক্ষা করার কাজে জাতিসংঘ ঘোষণা মেনে চলতে হবে। তারা সিরিয়ায় ইসরায়েলের ধারাবাহিক হামলাকে দেশটির সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত হিসেবে অভিহিত করে বলেন, ইসরাইলের এই অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারী পদক্ষেপের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা তীব্রতর হবে।’

এই তিন নেতারা আরো বলেন, ‘একমাত্র পরস্পরের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠিত হতে পারে।’

বিবৃতিতে বলা আরো হয়, সামরিক উপায়ে সিরিয়া সংকটের সমাধান করা যাবে না বরং দেশটির সকল পক্ষের মধ্যে রাজনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে সেদেশের জন্য একটি সুষ্ঠু সমাধান বের করতে হবে। আর এ কাজে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৫৪ নম্বর প্রস্তাব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

তিন প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে আরো যেসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ রয়েছে সেগুলো হচ্ছে, সিরিয়ার সংবিধান প্রণয়নের চলমান প্রক্রিয়া ও জাতিসংঘের সিরিয়া বিষয়ক বিশেষ দূতের বিভিন্ন উদ্যোগের প্রতি সমর্থন, সিরিয়ার সব নাগরিকের কাছে মানবিক ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা এবং বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত সিরীয় শরণার্থীদের নিরাপদে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ব্যবস্থা করা।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0185 seconds.