• বিদেশ ডেস্ক
  • ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:২১:১৬
  • ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:২১:১৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ঐতিহাসিক আল নূরী মসজিদ ২০২০ সালে পুনর্নির্মাণ হবে : ইউনেস্কো

ছবি : সংগৃহীত

ইরাকের মসুল নগরীতে অবস্থিত ঐতিহাসিক আল নূরী মসজিদটির পুনর্নির্মাণ ২০২০ সাল থেকে শুরু হবে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান এবং সংস্কৃতিবিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো।

বুধবার ইউনেস্কো জানায়, ২০১৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের ধ্বংস করে দেয়া দ্বাদশ শতকের আল নূরী মসজিদটি ২০২০ সালে পুনরায় নির্মাণ শুরু হবে।

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে আল নূরী মসজিদের পুনর্নির্মাণের সময় নির্ধারিত হয়।  হেলানো মিনারের জন্য বিখ্যাত ছিল এই মসজিদটি।

বৈঠকে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক অড্রে আজুলে এবং ইরাকের সংস্কৃতিমন্ত্রী আব্দুলামির আল দাফর হামদানি এবং মসুলের আঞ্চলিক গভর্নর মনসুর আল মারিদ উপস্থিত ছিলেন।

এই মসজিদ পুনর্নির্মাণে ১০০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় হবে বলে জানা গেছে। মসুলের আত্মাকে পুনরুজ্জীবিত করার লক্ষ্য নিয়ে এই স্থাপত্যটি পুনরায় নির্মাণ করা হবে। এটি ইরাকের ইতিহাসে বৃহত্তম পুনর্নির্মাণের ঘটনা।

উল্লেখ্য, আইএস নেতা আবু বকর আল বাগদাদী ২০১৪ সালে আল নূরী মসজিদ থেকে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে তাদের খিলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যের কথা ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু ২০১৭ সালে ইরাকি সেনারা মসুল আক্রমণ করলে আইএস এই মসজিদটির ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে।

অবশেষে আইএসের কবল থেকে মসুল উদ্ধার করতে সক্ষম হয় ইরাকি বাহিনী। কিন্তু ঐতিহাসিক এই শহরটির ব্যাপক ক্ষতি করে যায় তারা। বেশিরভাগ ভবনই ধ্বংস করে দেয়া হয়েছিল। ইউনেস্কো কেবল আল নূরী মসজিদই নয় বরং এই শহরটির অন্যান্য প্রাচীন সব নিদর্শন পুনরুদ্ধারের জন্যও পরিকল্পনা করেছে।

এই প্রকল্পে বিশেষ করে মসজিদ নির্মাণের জন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত ৫০.৪ মিলিয়ন ডলার এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২৪ মিলিয়ন ডলার দেবে বলে জানা গেছে।

বাংলা/এফকে

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0223 seconds.