• ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:১১:৫৬
  • ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:১১:৫৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

তারেক মাসুদের মাকে ম্যাজিক লণ্ঠন এর সংবর্ধনা

ছবি : সংগৃহীত

রাবি প্রতিনিধি :

প্রখ্যাত চলচ্চিত্রনির্মাতা তারেক মাসুদের মা নুরুন্নাহার মাসুদকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চলচ্চিত্রবিষয়ক সংগঠন ম্যাজিক লণ্ঠন-এর পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। অনুষ্ঠানে তারেক মাসুদের মা এবং বন্ধু প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক আলম খোরদেশের লেখা বই ‘তারেক মাসুদ, শূন্যের ভিতরে এতো ঢেউ’ বইয়ের পাঠ-উন্মোচনও করা হয়। 

মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একাডেমিক ভবনের ১২৩ নম্বর কক্ষে ‘তারেক মাসুদ স্মরণ’ অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।

তারেক মাসুদকে নিয়ে দিলশাদুল হক শিমুল নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘সুলতান’-এর প্রদর্শনীর মাধ্যমে শুরু হয় অনুষ্ঠানের মূল পর্ব। এরপর তারেক মাসুদের মা নুরুন্নাহার মাসুদকে ম্যাজিক লণ্ঠনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। 

সংবর্ধনা স্মারক তুলে দেন কথাসাহিত্যিক মামুন হুসাইন। লেখক, গবেষক ও ‘উঠোন’ সম্পাদক মফিজ ইমাম মিলনের হাতে বিশেষ সম্মাননা স্মারক তুলে দেন ম্যাজিক লণ্ঠন সম্পাদক কাজী মামুন হায়দার। দিলশাদুল হক শিমুলকে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেন ম্যাজিক লণ্ঠন পত্রিকার সহকারী সম্পাদক শফিকুল ইসলাম। 

পরে মা ও বন্ধুর চোখে অন্য এক তারেক মাসুদের গল্প নিয়ে ‘তারেক মাসুদ, শূন্যের ভিতরে এতো ঢেউ’ গ্রন্থের পাঠ-উন্মোচন করা হয়। ম্যাজিক লণ্ঠন প্রকাশনের এই গ্রন্থটি নিয়ে কথাসাহিত্যিক মামুন হুসাইন আলোচনা করেন। গ্রন্থটির গ্রন্থনা ও সম্পাদনা করেছেন ম্যাজিক লণ্ঠনের সহযোগী সম্পাদক, চলচ্চিত্র লেখক ও সাংবাদিক ইব্রাহীম খলিল।

অনুষ্ঠানে তারেক মাসুদের মা নুরুন্নাহার মাসুদ বলেন, ‘আজ সাত বছর হল আমি তারেককে হারাইছি। প্রথম ছয় বছর তারেককে ছাড়া আমি এক কুয়াশার মধ্যে থেকেছি। আমি তারেককে হারাইছি। তোমরাও হারাইছো। বাংলাদেশ একজন রত্ন হারাইছে।’ 

‘আমার তারেককে ঘাতকেরা মেরে ফেলল। আমার তো তাই মনে হয়। ঘাতকেরা তার গাড়ির উপর গাড়ি তুলে দিল। ভালোবাসা মানুষকে বাঁচতে শেখায়। আমার তারেক মাসুদ দেশকে, দেশের মানুষকে, বাংলা চলচ্চিত্রকে ভালোবেসেছিল। শিল্প সাহিত্যকে আঁকড়ে ধরে বাঁচতে চেয়েছিল কিন্তু ঘাতকরা তার প্রাণ কেড়ে নিল। আজ সাত বছর আমার বুকের মানিক নেই, শুধু ওর ভালোবাসা বুকে নিয়েই বেঁচে আছি।’

তারেক মাসুদের ভাই সাঈদ মাসুদ বলেন, ‘ম্যাজিক লণ্ঠনের এ আয়োজন শুধু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নয়, যেন পুরো রাজশাহীবাসী তারেককে সম্মান জানাল। আমার মা তারেককে নিয়ে এ জীবনে অনেক কথা বলেছেন। কিন্তু ম্যাজিক লণ্ঠন মাত্র কয়েক ঘণ্টায় তার কথা ধারণ করে একটি বই করেছে। তাতে উঠে এসেছে আমার মায়ের সারা জীবনের ইতিহাস, তারেকের ইতিহাস। আমার কাছে মনে হয়, আমার মা তার জীবনের শ্রেষ্ঠ সম্মান পেলেন ‘তারেক মাসুদ, শূন্যের ভিতরে এতো ঢেউ’ গ্রন্থটির মাধ্যমে।’

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন লেখক, গবেষক ও ‘উঠোন’ পত্রিকার সম্পাদক মফিজ ইমাম মিলন, তারেক মাসুদকে নিয়ে নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র ‘সুলতান’-এর নির্মাতা দিলশাদুল হক শিমুল।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিয়মিত প্রকাশিত চলচ্চিত্রবিষয়ক গবেষণা জার্নাল ম্যাজিক লণ্ঠন যাত্রা শুরু করে ২০১১ খ্রিস্টাব্দে। জানুয়ারি ও জুলাই মাসে আমরা নিয়মিত এ জার্নালটি প্রকাশ হয়।

ইতোমধ্যেই পত্রিকারটির ১৭তম সংখ্যা প্রকাশ হয়েছে। এই জার্নালে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের লেখা চলচ্চিত্র, সংবাদপত্র, টেলিভিশন, নিউ মিডিয়া বিষয়ক প্রবন্ধ-নিবন্ধ ও সাক্ষাৎকার প্রকাশ করা হয়ে থাকে। প্রতি রবিবারে চলচ্চিত্রবিষয়ক ও বুধবারে সাধারণ পাঠচক্র করা হয়। এছাড়া ম্যাজিক লণ্ঠন-এর প্রযোজনায় সংগঠনটির সদস্যরা নিয়মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও নির্মাণ করে থাকেন।

বাংলা/এএএ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0246 seconds.