• ফিচার ডেস্ক
  • ২৮ আগস্ট ২০১৯ ১১:৪৯:৪৩
  • ২৮ আগস্ট ২০১৯ ১১:৪৯:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

অতিরিক্ত ঘামলে সতর্কতা জরুরি

ছবি : গেটি ইমেজেস থেকে নেয়া

ঘামলে সাধারণত শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের হয়ে যায়। তবে যদি ঘামের মাত্রা হয় বেশি তবে সতর্ক হওয়ার সময় এসে গেছে। অতিরিক্ত ঘাম কোনো ভালো লক্ষণ নয়। যারা অতিরিক্ত ঘামেন তাদের শরীরে থাকতে পারে কোনো না কোনো সমস্যা। মারাত্মক কিছু হওয়ার আগেই তাই এর প্রতিকারে মনোযোগী হওয়া দরকার। এবং সেই সাথে জেনে নেওয়া প্রয়োজন কেন অতিরিক্ত ঘামছেন আপনি।

যেসব রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায় বেশি ঘামে : বেশি ঘামলে সংক্রমণের বিষয়ে ভাবতে হবে। সংক্রমণের ধরন অনুযায়ী অনেক কিছুতে আক্রান্ত হতে পারেন। ঘামের মাধ্যমে প্রকাশ পেতে পারে টাইপ এক এবং টাইপ দুই ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ। গর্ভাবস্থা বা অন্য কারণে গ্যাস্টেশনাল ডায়াবেটিস দেখা দিতে পারে। ইনসুলিন উৎপাদনে সমস্যা এবং রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে ঝামেলা হলেও এমনটা হয়। অনেকের রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়েও অনেক কম থাকে। অস্বাভাবিক ঘামা হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ।

বিশেষ করে বয়স ৪৫ এর বেশি হলে কারণ ছাড়াই অতিরিক্ত ঘামলে দ্রুতই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ, এটি হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা প্রকাশ করে। উচ্চ রক্তচাপ, ধূমপান কিংবা পরিবারে হৃদরোগের ইতিহাস থাকলেও সতর্ক হোন। মানসিক উত্তেজনা, রাগ, ভয়, উদ্বেগের কারণেও ঘাম বেড়ে যেতে পারে। রাতে ঘুমের মধ্যে দুঃস্বপ্ন দেখে ঘেমে যাওয়া অস্বাভাবিক নয়। যক্ষ্মা বা লসিকাগ্রন্থির ক্যানসারের কারণেও রাতে ঘাম দেখা দেয়।

প্রতিকার : অতিরিক্ত গরম বা রোদে বেশি ঘেমে গেলে মাথা ঘোরা, শরীর দুর্বল লাগা ও ঝিমঝিম করতে পারে। এতে শরীর থেকে পানি ও লবণ বেরিয়ে যায়। তাই বেশি ঘামলে পান করুন পানি বা স্যালাইন। এছাড়া ডাবের পানিও পান করতে পারেন। ডায়াবেটিস রোগীর শরীরে বিন্দু বিন্দু ঘাম দেখা দিলে বুঝবেন রক্তে শর্করা কমে গেছে। এমন হলে দ্রুত চিনির শরবত পান করুন। দীর্ঘমেয়াদি ডায়াবেটিসের রোগীদের স্নায়ুজনিত সমস্যা হলে খাবার সময় বা পরে মাথা, কপাল, ঘাড়ে বেশি ঘাম দেখা দিতে পারে।

উদ্বেগজনিত সমস্যা থাকলে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হোন। কোনো দুশ্চিন্তায় বেশি ঘামা, হাত-পায়ের তালু ঘামা উদ্বেগের লক্ষণ। সঙ্গে বুক ধড়ফড়ানিও দেখা দিতে পারে। থাইরয়েড সমস্যায় একই ধরনের উপসর্গ। তাই থাইরয়েড হরমোন পরীক্ষা করতে পারেন। এ ছাড়াও দৈনিক শারীরিক অবস্থা অনুযায়ী দুই থেকে আড়াই লিটার পানি বা পানীয় জাতীয় খাবার পান করুন।

বাংলা/এসএ

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ঘাম স্বাস্থ্য

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0203 seconds.