• বিদেশ ডেস্ক
  • ২৭ আগস্ট ২০১৯ ১৩:০১:৫৫
  • ২৭ আগস্ট ২০১৯ ১৩:০১:৫৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

চুরি করে পালাতে গিয়ে সন্তানকেই ফেলে যান মা, অতপর..

ছবি : সংগৃহীত

শপিং মলে জিনিসপত্র কিনতে গিয়েছিলেন তিন নারী। তাই পুরো দোকান ঘুরে ঘুরে নানা জিনিসপত্র দেখছিলেন। কিন্তু নানা ধরনের জিনিস দেখে লোভ সামলে না পেরে টাকা না দিয়েই হাতিয়ে নেন দামি জিনিস। তবে সমস্যা বাঁধে অন্যত্র। কারণ, চুরির তাড়ায় সন্তানতে ফেলে রেখে যান ওই নারী।

সেই শিশুটির মায়ের খোঁজ করতে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজে এ ঘটনা ধরা পড়ে কর্তৃপক্ষের কাছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির মিডলটন শহরের ওই শপিং মলে এ ঘটনা ঘটে। শপিং মল  কর্তৃপক্ষ সিসিটিভি ফুটেজটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ারও করে। এমন খবর প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা সংবাদ প্রতিদিন।

ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, তিনজন নারী শপিং মলে ঢুকে। তাদের মধ্যে একজনের সঙ্গে রয়েছে সন্তান। তিনি শপিং মলের জিনিসপত্র দেখছেন। ভাল জিনিসপত্র দেখেই লোভে চকচক করে উঠছে তার চোখ। কোনটা ছেড়ে কোনটা নেবে, কিছুই বুঝে উঠতে পারছে না। ফন্দি আঁটল তিনজন। চুরি করবে তারা।

সেজন্য দুই নারী স্টোরের কর্মীদের জিনিস দেখানোর কাজে ব্যস্ত রাখল। আরেক মহিলা হাতিয়ে নিল দামি জিনিস। এরপর দৌড়। পালিয়ে গেল শপিং মল থেকে। কিন্তু তারাহুড়োতে শপিং মলেই ফেলে গেল কোলের শিশুকে। বেশ কিছুক্ষণ পর ধাতস্থ হয় ওই নারী। তখনই মনে পড়ে তার সন্তানের কথা। ততক্ষণে যদিও মিনিট সাতেক কেটে গিয়েছে। এরপর তিনজনের মধ্যে এক নারী শপিং মলে যায়। নিয়ে আসে কোলের শিশুকে।

তবে ততক্ষণে শিশুর অভিভাবকের খোঁজে সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে শুরু করেছে শপিং মল কর্তৃপক্ষ। তাদের কাছে পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে ওই মহিলাদের কুকীর্তিও। ওই ফুটেজের ভিত্তিতে পুলিশ দুই মহিলাকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে।

কিন্তু প্রশ্ন একটাই পুলিশ ব্যবস্থা নেয়ার পরেও কেন সামাজিক যোগায়োগ মাধ্যমে চুরির ছবি শেয়ার করল শপিং মল কর্তৃপক্ষ?

এই প্রশ্নের জবাবে দিয়েছেন মালিক এনেলিয়ো অর্টেগা বলেন, ‘চুরি করে জীবন কাটানোর সিদ্ধান্ত মোটেও সমর্থনযোগ্য নয়। আবার ওই মহিলা নিজের সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে এসেছিল। সেক্ষেত্রে তার সন্তানের মধ্যেও চুরির প্রবণতা তৈরি হতে পারে। তাই বলব সন্তানদের সামনে এসব করবেন না। এই ঘটনার মাধ্যমে অন্যান্য অভিভাবকদেরও বার্তা দিতে চাই। তাই ফেসবুকে ওই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ শেয়ার করেছি।’

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0215 seconds.