• বিনোদন ডেস্ক
  • ২৩ আগস্ট ২০১৯ ১৮:৪৯:২৫
  • ২৩ আগস্ট ২০১৯ ১৮:৪৯:২৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

এক ভিডিওতেই বদলে গেলো সেই রানুর জীবন!

ছবি : সংগৃহীত

মাত্র কয়েকদিন আগেও পাগল বেশে স্টেশনে বসে আপন মনে গান গাইতেন রানু মণ্ডল। সেই রানু মণ্ডল এখন রীতিমত সেলিব্রেটি। ফেসবুকে রানু মণ্ডলের সেই গান ভাইরাল হওয়ার পর অনেকটা সিনেমার মতো ঘুরে গেছে তার জীবনের গল্প।

ভারতের পশ্চিম বঙ্গের নদিয়ার রানু মণ্ডল গান গাইলেন বলিউডের তারকা গায়ক হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে। 'তেরি মেরি কাহানি' নামে সেই গানটির স্টুডিও রেকর্ডিংও শেষ হয়েছে। সেই রের্কডিংয়ের একটি অংশ ইতোমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়েছে। এই গানটি বলিউডের আসন্ন ছবি হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হির-তে ব্যবহার করার কথা রয়েছে।

গত ২০ জুলাই সোশ্যাল মিডিয়ায় লতা মঙ্গেশকরের গাওয়া একটি গান গেয়ে রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যান রানু মণ্ডল। গত একমাসে ভিউয়ারের সংখ্যা প্রায় কোটি ছুঁয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সাধারণ মানুষ তো বটেই বিভিন্ন গুণি শিল্পীরা গায়িকার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। সেই গান শুনে ১০ বছর ধরে দূরে থাকা মেয়ে সাথী বীরভূম থেকে ছুটে এসেছিলেন মাকে দেখতে।

ওই একটি ভিডিওই যেন বদলে দিতে শুরু করে রানু মণ্ডলের পথে পথে ঘুরে বেড়ানো জীবনটাকে। কিছুটা মানসিক অসুস্থতা নিয়েও কাটছিলো রানুর দিন। সন্তানেরা সবাই দূরে। কেউ খোঁজ খবরও রাখে না। একা একা রানু স্টেশনে বসে গান গাইতো। একদিন সেই গানই ছড়িয়ে পরলো ফেসবুকে। ব্যস বদলে গেছে জীবনও।

সম্প্রতি কলকাতায় দুর্গা পূজা উপলক্ষে একটি ‘থিম সং’ গান রানু মণ্ডল। এরপর আবার শোনা গেলো হিমেশের সাথে তার গান রেকর্ডিংয়ের খবর। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর রানুকে নিয়ে গান রেকর্ডিংয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন হিমেশ। 

বলিউডের সঙ্গীত পরিচালক ও গায়ক হিমেশ বলেছিলেন, ‘সালমান ভাইয়ের বাবা সালিম আঙ্কল আমাকে বলেছিলেন জীবনে প্রতিভাধর মানুষের সঙ্গে আলাপ হলে তার পাশে দাঁড়াতে।’

সংশ্লিষ্ট বিষয়

রানু মণ্ডল গান কলকাতা

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0201 seconds.