• বিনোদন ডেস্ক
  • ১৯ আগস্ট ২০১৯ ২১:১৯:৫৫
  • ২০ আগস্ট ২০১৯ ০১:৪৫:৪৩
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

স্টেশনে গান গেয়ে ভাইরাল হওয়া সেই রানু গাইবেন থিম সং

রানু মণ্ডল। ছবি : সংগৃহীত

মনে আছে সেই রানু মণ্ডলের কথা? কিছু দিন আগেই যার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিলো। রেল স্টেশনে বসে করুণ সুরে গান গেয়েছিলেন রানু আর সেই গান অতিন্দ্র চক্রবর্তী নামে একজন ভিডিও করে ছেড়েছিলেন ফেসবুকে। সেই গান শুধু মুগ্ধই করেনি মানুষকে। সেই সাথে ১০ বছর পর মা-মেয়ের স্বাক্ষাতও ঘটিয়েছিলো।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদিয়ার একটি রেল স্টেশনে বসে গান গেয়েছিলেন রানু মণ্ডল। কিছুটা অস্বাভাবিক (মানসিক রোগী) আচরণ করা সেই রানুর গান দেশ বিদেশে মানুষের প্রশংসায় ভেসে যায়। গান শুনে ১০ বছর ধরে দূরে থাকা মেয়ে সাথী বীরভূম থেকে ছুটে এসেছিলেন মাকে দেখতে। তখন সাথী জানিয়েছেন, তার মা রানু মণ্ডল অনেক দুঃখে কষ্টে সংসার করেছেন। কিন্তু তার ভেতরে একটি গোপন স্বপ্ন ছিলো গায়িকা হওয়ার। সেই স্বপ্ন আর পূরণ হয়নি।

তখন সাথী জানিয়েছিলেন, মা গায়িকা হতে না পারলেও তার ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় লাখ লাখ মানুষ তার গান শুনেছে , প্রশংসা করেছে। তাই গায়িকা হওয়ার স্বপ্ন কিছুটা হলেও পূরণ হয়েছে। কিন্তু এবার রীতিমত স্টুডিওতে গিয়ে গান রেকর্ডিং করছেন রানু মণ্ডল। আসছে দুর্গা পূজায় রানু মণ্ডলের গান থিম সং হিসেবে বাজবে।

কলকাতার বাগুইআটির অর্জুনপুরের ‘আমরা সবাই ক্লাব’ তাদের পূজার ‘থিম সং’ হিসেবে রানুর গান রেকডিং করেছেন। গানটি লিখেছেন প্রীতম দে। আর সুরকার বিজয় শীল। সুরকার বিজয় রবীন্দ্র সরোবর মেট্রো স্টেশনে ফুটপাথে গিটার বাজিয়ে গান করেন। 

কেন এমন পরিকল্পনা? এমন প্রশ্নের উত্তরে পূজা কমিটির সদস্য তমাল দত্ত বলেন, ‘গত ২০ জুলাই সোশ্যাল মিডিয়ায় লতাজির গাওয়া একটি গান গেয়ে রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে যান রানু। গত একমাসে ভিউয়ারের সংখ্যা প্রায় কোটি ছুঁয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সাধারণ মানুষ তো বটেই বিভিন্ন গুণী শিল্পীরা গায়িকার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ফলে আমাদের মনে হয়েছে তার কণ্ঠ একজন শিল্পী হিসেবে আরো বেশি লোকের কাছে পৌঁছে দেয়া প্রয়োজন। সে জন্য আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি।’ ( সূত্র : নিউজ ১৮ )

‘তোমারি আশ্রয়ে আমারি আশ্রয় মা। বাঁশের বাসরে হেরি তোমারই মহিমা' এমন কথায় কণ্ঠ দিয়েছেন রানু। অনেকেই ধারনা করছে এবার মন্ডপে মন্ডপে বাজবে রানুর সেই গান। আবারও বোধ হয় ভাইরাল হতে যাচ্ছে স্টেশনে বসে গাওয়া সেই ভবঘুরে রানু মণ্ডল।

যেভাবে আবিষ্কার হলো এই রানু মণ্ডল :

রানাঘাট স্টেশনে নিয়মিত যাত্রীদের ভিড়। সন্ধ্যার দিকে এই ভিড় আরো বেশি। এই স্টেশনেই আড্ডা দেন অতীন্দ্র চক্রবর্তী। পেশায় ইলেকট্রনিক্স টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার। থাকেন রানাঘাটে। সন্ধ্যার পর রানাঘাট রেলস্টেশনের ৬ নম্বর প্ল্যাটফর্মে তাদের বন্ধুদের আড্ডা বসে ৷ সেদিনও আড্ডায় বসেছিলেন তারা ৷ আর সেই সময়ই শুনতে পেলেন মুগ্ধ করা কণ্ঠস্বর ৷ অতীন্দ্ররা এগিয়ে গেলেন সেই শিল্পীর কাছে।

একাই গেয়ে চলেছেন মাঝবয়সী মহিলা ৷ কিছুটা পাগলের মতো বেশ। তেলহীন কাঁচা-পাকা, এলোমেলো চুল ৷ গা-ভর্তি ময়লা ৷ ছাপা শাড়ি, খাটো করে পরা। ধুলোমলিন। এই পাগলি বেশের শিল্পীই একে একে গেয়ে চলেছেন গান। মুগ্ধ শ্রোতা অতীন্দ্র তা মোবাইল ক্যামেরায় বন্দি করেন। পরে সেই অখ্যাত শিল্পীর সঙ্গে বন্ধুদের পরিচয় করাতে চেয়ে একটি-দু’টি গানের ভিডিও ছেড়ে দেন ফেসবুকে। ব্যাস, ভাইরাল। লাখ লাখ মানুষ ইতোমধ্যে শুনেছেন সেই গান।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

রানু মণ্ডল কলকাতা গান

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.2078 seconds.