• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৪ আগস্ট ২০১৯ ২১:৫৮:৫৯
  • ১৪ আগস্ট ২০১৯ ২১:৫৮:৫৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

রাস্তায় হাজার হাজার চামড়া, সরাবে কে?

ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার জালকুড়িস্থ আন্তর্জাতিক ভেন্যু খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উল্টো পাশের রাস্তায় পড়ে আছে হাজার হাজার চামড়া। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সীমানা শুরু সেই পিলারের নীচেই পচতে শুরু করেছে পরিত্যাক্ত গুরুর চামড়াগুলো।

মঙ্গলবার সকালে থেকে ওই চামড়াগুলো রাস্তায় পড়ে আছে।

জানা গেছে, বিভিন্ন  এলাকার মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীরা একেকটি চামড়া কিনেছিলেন ৩০০-৪০০ টাকা করে। আবার মাদ্রাসাগুলো সংগ্রহ করেছিল এই চামড়াগুলো। ক্রেতা শূণ্যতায় কারণে চামড়াগুলো ফেলে দিতে বাধ্য হয় ব্যবসায়ীরা। 

মৌসুমী ব্যবসায়ীরা জানান, শহরের চাষাঢ়া এলাকায় মূলত চামড়া বড় লট ক্রেতারা প্রতি বছর হাজির হন। কিন্তু সেই ব্যবসায়ীরা যেন উধাও ছিল এবার। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দুয়েক ব্যবসায়ী দেখা গেলেও দুপুর গড়ালেই ব্যবসায়ীরা হয়ে যান লাপাত্তা। এতে বিভিন্ন এলাকা চামড়া সংগ্রহ করা মৌসুমী ব্যবসায়ীরা পড়েন চরম বিপাকে। উপায়ন্তর না পেয়ে চামড়াগুলো রাস্তায় ফেলে রেখে যায় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। 

এদিকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে পরিত্যক্ত ওই চামড়াগুলোর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেছে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। এছাড়া একদিকে চামড়া এভাবে রাস্তায় ফেলে দিয়ে পরিবেশের ক্ষতি ও অন্যদিকে চামড়া সিন্ডিকেট ওপর চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ।

এদিকে এভাবেই রাস্তায় চামড়া ফেলে রাখায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন বুধবার বিকেল পর্যন্ত কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে নাসিকের বেশ কয়েক পরিচ্ছন্ন কর্মী জানান, এগুলো কেন এভাবে ফেলে রাখা হলো। আমরা সিটি করপোরেশন থেকে এগুলো অপসারণে কোন দিক নির্দেশনা পাইনি।

নাসিকের প্রধান নির্বাহী (সিইও) এহতেশামুল হক জানান, এটি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের বাইরে ইউনিয়ন পরিষদের অধীনের জায়গায়। তবে তারা যদি আমাদের কাছে সহযোগিতা চায়, আমরা সহযোগিতা করব। এটার পাশেই নম পার্ক ও ফতুল্লা স্টেডিয়াম। কিন্তু এগুলোতে তো আমাদের নাসিকের কোনো হোল্ডিং নম্বর নেই। আমরা আমাদের সীমানা সম্পর্কে অবহিত রয়েছি।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

চামড়া নারায়ণগঞ্জ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0217 seconds.