• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৯ আগস্ট ২০১৯ ১৪:৩৭:২৭
  • ০৯ আগস্ট ২০১৯ ১৪:৩৭:২৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

বিকাশে একাউন্ট খোলা যাবে আরো সহজে

ছবি : সংগৃহীত

এখন থেকে তাৎক্ষণিক ভাবেই খোলা যাবে বিকাশ একাউন্ট। ই-কেওয়াইসি (ইলেক্ট্রনিক-নো ইয়োর কাস্টমার) -এর মাধ্যমে গ্রাহকের জাতীয় পরিচয় পত্র (এনআইডি) স্ক্যান করে এবং ছবি তুলে কয়েক মিনিটের মধ্যেই নতুন একাউন্ট খোলা যাচ্ছে এই পেপার-লেস ডিজিটাল নিবন্ধণ পদ্ধতিতে।

এ পদ্ধতিতে একাউন্ট খোলার সময় তাৎক্ষণিক ভাবে গ্রাহকের তথ্যের সাথে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের এনআইডি ডাটাবেজ -এ রক্ষিত তথ্যের সত্যতা যাচাই (ভেরিফাই) করেই নতুন বিকাশ একাউন্ট নিবন্ধণ এবং এর সকল সেবা ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে। এভাবে ই-কেওয়াইসি দিয়ে ঝামেলাহীন, দ্রুত এবং ভেরিফাইড একাউন্ট খুলে গ্রাহক এবং বিকাশ উভয়েরই যেমন সময়ের সাশ্রয় হচ্ছে, তেমনি একাউন্টগুলোর নিরাপত্তা আরো সুদৃঢ় হচ্ছে।

গত ১০ জুলাই চালু হওয়ার পরে বর্তমানে সারাদেশে ২৬ হাজার এজেন্ট, প্রায় ৩০০ টির মত বিকাশ কেয়ার, বিকাশ সেন্টার এবং ডিস্ট্রিবিউটর অ্যাকুইজেশন ম্যানেজার এর কাছে ই-কেওয়াইসি এর মাধ্যমে নতুন একাউন্ট খোলার সুবিধা নেয়া যাচ্ছে।

এই পদ্ধতিতে একাউন্ট খুলতে গ্রাহকের এনআইডি কার্ড থেকে ওসিআর (OCR - Optical Character Recognition) পদ্ধতির মাধ্যমে সরাসরি তথ্য সন্নিবেশিত করা হচ্ছে। পরবর্তী ধাপে মোবাইল থেকেই সরাসরি গ্রাহকের ছবি তোলা হচ্ছে এবং ফেস ডিটেকশন প্রযুক্তির মাধ্যমে ছবি মিলিয়ে পরবর্তী ধাপে যাওয়া হচ্ছে। সন্নিবেশিত তথ্য ও ছবি তাৎক্ষণিকভাবে নির্বাচন কমিশন ডাটাবেজ এ রক্ষিত তথ্যের সাথে যাচাই (ভেরিফাই) করেই কয়েক মিনিটের মধ্যেই বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্ভব হচ্ছে। প্রতিটি একাউন্ট সফলভাবে খোলার পর গ্রাহক এবং যিনি একাউন্ট খুলে দিচ্ছেন উভয়ই নিশ্চিতকরণ মেসেজ পাচ্ছেন।
  
ই-কেওয়াইসি-এর মাধ্যমে তথ্য নেওয়ায় সমৃদ্ধ হচ্ছে বিকাশ এর গ্রাহক ডাটাবেজ। চীনের আলিবাবা সহ অনেক দেশের মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ই-কেওয়াইসি নিবন্ধন সুবিধা কাজে লাগিয়ে নানান ধরনের উন্নত সেবা চালু করেছে। ভারতের সরকারী সেবা সমূহের দপ্তরগুলোতেও গ্রাহকসেবায় গতিশীলতা এনেছে ই-কেওয়াইসি পদ্ধতি।

ই-কেওয়াইসি সুবিধা ব্যবহার করে গ্রাহকের জন্য আরো বেশি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং ক্ষুদ্রঋণ, ইন্স্যুরেন্স এর মত আরো অগ্রসর সেবা দেয়া সম্ভব। এছাড়া গ্রাহক সেবা বা রেগুলেটরি কর্মকান্ডের যে কোন প্রয়োজনে রিয়েল-টাইমে গ্রাহকের তথ্য ব্যবহার করাও সহজ।

এ পর্যায়ে এজেন্ট, ডিস্ট্রিবিউটর, বিকাশ কেয়ার ও বিকাশ সেন্টারে গিয়ে ই-কেওয়াইসি নিবন্ধন প্রক্রিয়া চালু হলেও খুব শীঘ্রই গ্রাহক পর্যায়ে এই সেবা চালু করার পরিকল্পনা করছে বিকাশ। সেক্ষেত্রে গ্রাহকগণ নিজেদের একাউন্ট নিজেরাই খোলার সুযোগ পাবেন।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিকাশ একাউন্ট

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0274 seconds.