• বিনোদন ডেস্ক
  • ৩১ জুলাই ২০১৯ ১৬:০৭:২৯
  • ৩১ জুলাই ২০১৯ ১৬:০৭:২৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

জাফর ইকবালকে আমি ভালোবাসতাম : ববিতা

ছবি : সংগৃহীত

৩০ জুলাই ছিল দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী ববিতার জন্মদিন। অবশ্য এবার জন্মদিনে তেমন কোনো আয়োজনই করেননি চলচ্চিত্রের এই বরেণ্য অভিনেত্রী। জন্মদিন উপলক্ষ্যে এই অভিনয়শিল্পীর চলচ্চিত্র ও অন্যান্য প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে নিজের প্রেম নিয়েও মন্তব্য করেন তিনি।

জানা গেছে, একেবারে ঘরোয়া পরিবেশে গতকাল দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী ববিতা জন্মদিন পার করেন। একমাত্র ছেলে অনিক কানাডা আছেন, ছেলে থাকলে তিনি কিছু আয়োজন করেন বলে জানান তিনি।

ববিতার সঙ্গে অনেক সিনেমায় পর্দা ভাগাভাগি করেছেন আরেক বরেণ্য অভিনেতা জাফর ইকবাল। যার সঙ্গে ববিতার প্রেমের সম্পর্কের কথাও শোনা যেত। আর নিজের জন্মদিন উপলক্ষ্যে প্রথম আলোকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সেই প্রেম নিয়ে তিনি বলেন, ‘জাফর ইকবালকে ভীষণ পছন্দ করতাম। খুবই স্মার্ট, গুড লুকিং। তাকে আমি ভালোবাসতাম। সেও আমাকে ভালোবাসত। অবসর সময়ে আমাকে গান শেখাত। গিটার বাজিয়ে ইংরেজি গানের চর্চা করতাম।’

কীভাবে উদ্‌যাপন করলেন এবারের জন্মদিন জানতে চাইলে ববিতা বলেন, ‘এবার কিছুই করিনি। কয়েক বছর ধরে জন্মদিনে ঢাকায় থাকলে সুবিধাবঞ্চিত অনেক শিশু আমার বাসায় আসত। গান শোনাত, আড্ডা দিতাম, খাবার খেতাম। এর বাইরে পরিচিতজনেরা শুভেচ্ছা জানায়। এবার অত আয়োজন রাখিনি। ছোট বোন চম্পা দেশের বাইরে, বড় বোন সুচন্দাও পারিবারিক কাজে ব্যস্ত। ছেলে অনিক কানাডায়, ওর সঙ্গে কথা হয়েছে। বলল, একটা উপহার কিনে রেখেছে। সারপ্রাইজ হিসেবে রেখে দিয়েছে।’

নিজের জন্মদিনে কেমন লাগে? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘মহা ধুমধাম করে জন্মদিন কখনোই উদ্‌যাপন করিনি। আমি মনে করি, এ নিয়ে এত হইচই করার কিছু নেই। মনে হয়, জীবন একটাই, এখনো অনেক কিছু করার আছে। কী করতে পারলাম না- এসব নিয়ে ভাবি।’

এছাড়া সিনেমার ফেরার কোনো ইচ্ছে রয়েছে জানিয়ে ববিতা বলেন, ‘সম্প্রতি দুটি ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব নিয়ে আমার কাছে পরিচালক ও প্রযোজক এসেছিলেন। যেমন ছবি চাই, তেমন কোনো গল্প তো পাই না।’

উল্লেখ্য, ১৯৫৩ সালের ৩০ জুলাই তিনি বাগেরহাট জেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৬৮ সালে প্রখ্যাত নির্মাতা জহির রায়হানের ‘সংসার’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেন ববিতা। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ২৭০টির মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

সবশেষ ‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’ ছবিতে তাকে অভিনয় করতে দেখা গেছে। সত্যজিৎ রায়ের ‘অশনি সংকেত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হন তিনি। বাংলা চলচ্চিত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৬’-এ আজীবন সম্মাননা পেয়েছেন।

এর আগে ১৯৭৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রবর্তনের পর টানা তিনবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া ১৯৮৬ সালে আরেকবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী, ১৯৯৭ সালে শ্রেষ্ঠ প্রযোজক এবং ২০০৩ ও ২০১৩ সালে দুইবার শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীর পুরস্কার লাভ করেন।

সংশ্লিষ্ট বিষয়

জাফর ইকবাল ববিতা

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0220 seconds.