• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০৯ জুলাই ২০১৯ ২২:৫৪:৫৬
  • ০৯ জুলাই ২০১৯ ২২:৫৪:৫৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

মোটরসাইকেল চালকের ঘুষিতে নাক ফাটলো পুলিশের

ছবি : সংগৃহীত

ঢাকার শ্যামলীতে মামলা দেয়ার কারণে পুলিশ অফিসারসহ একজন কনস্টেবলকে মারধর করেছেন দুই মোটরসাইকেল আরোহী। আহত পুলিশ অফিসার হলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট কামরুল ও কনস্টেবল রোকন। এ ঘটনায় নাক ফেটে গেছে এক কনস্টেবলের।

মঙ্গলবার বিকাল ৪টার সময় শ্যামলীর ১ নম্বর রোডে সার্জেন্ট কামরুল মোটরসাইকেলের মালিকানা পরিবর্তন না করায় ৩৭ ধারায় মামলা করলে এমন ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত সজীব ও ইয়াসিন মামলা দেয়া হলে সার্জেন্ট কামরুলকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন। তখন কামরুল তাদের চলে যেতে বললে তারা দু‘জন হঠাৎ কনস্টেবল রোকনের হাত থেকে লাঠি নিয়ে কামরুল ও রোকনকে মারধর করেন এবং কিল ঘুষি মারে। এতে দু’জনেই আহত হয় এবং  একজনের নাক ফেটে রক্ত পড়ে।

এ সময় ঘটনা স্থলে উপস্থিত স্থানীয় জনগণ ও পুলিশ মিলে তাদের দুজনকে আটক করে শেরেবাংলা নগর থানায় নিয়ে যায়। এরপর ওই পুলিশ সার্জেন্ট ও কনস্টেবলকে উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে সার্জেন্ট কামরুল বলেন, ‘আমি প্রতিদিনের মতো আজকেও শ্যামলীতে ডিউটি পালন করছিলাম। একটি মোটরসাইকেলকে আমি সিগনাল দিই।(যার নম্বর-ঢাকা মেট্রো হ৫৫-৪৫৫৯)। তার মালিকানা না থাকায় তাকে একটি মামলা দিই। তখন তিনি আমাকে বিভিন্ন হুমকি দেন এবং আমার ডিসির কাছে বিচার দেবে বলে হুমকি দেন। আমি বলি আপনি যা পারেন করেন।’

কামরুল আরো বলেন, ‘পরে আমার মুখে থাকা মাস্ক টেনে খুলে ফেলে ইয়াসিন। এরপর আমাকে লাঠি দিয়ে ও কিল ঘুষি দিতে থাকেন। আমার পোশাক ছিড়ে ফেলেন। আমার কনস্টেবলকে ঘুষি দিয়ে নাক ফাটিয়ে দেন। ওদের সঙ্গে আরো একজন ছিল সে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়।’

এ বিষয়ে কনস্টেবল রোকন বলেন, ‘মামলা দেয়ার পর দেখি স্যারের সঙ্গে কথাকাটাকাটি করছে। আমি কাছে আসতেই আমার হাত থেকে লাঠি নিয়ে স্যারকে ও আমাকে মারতে শুরু করেন তারা।‘

এ ব্যাপারে মোহাম্মদপুর জোনের ট্রাফিক এসি কেএম শহিদুল ইসলাম সোহাগ বলেন, দু’জনকে আটক করে শেরেবাংলা নগর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় সার্জেন্ট কামরুল বাদী হয়ে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।’

বাংলা/এনএস

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0283 seconds.