• বাংলা ডেস্ক
  • ০৯ জুলাই ২০১৯ ০১:৩৩:২৫
  • ০৯ জুলাই ২০১৯ ০১:৩৫:২৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের প্রশ্নপত্রে ‘সেফুদা’

ফেসবুকে প্রশ্নপত্রের এই ছবিটি এখন ভাইরাল। ছবি : সংগৃহীত

দেশের খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের দশম শ্রেণির প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় ইসলাম শিক্ষা প্রশ্নপত্রে সিফাত উল্লাহ মজুমদারকে (সেফুদা) উল্লেখ করে একটি সৃজনশীল প্রশ্ন করা হয়েছে। যে প্রশ্নটি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

সৃজনশীল প্রশ্নটির উদ্দীপক হিসেবে লেখা হয়, ‘অদ্ভুত এক ধরণের মানুষ, সেফাতুল্লাহ সেফুদা। সোশ্যাল মিডিয়ায় সে বিভিন্ন কুরূচিপূর্ণ মন্তব্য করে। তরুণদের উদ্দেশ্যে সে বলে- ‘মদ খাবি, মানুষ হবি, আমি আরো এক গ্লাস খাইলাম’। তার কথার প্রতিবাদ করে একজন বিজ্ঞ আলেম বললেন, তার মধ্যে যদি ইমানের সর্ব প্রথম এবং সর্বপ্রধান বিষয়ের প্রভাব পরিলক্ষিত হত, তাহলে সে হয়ে উঠত একজন আত্মসচেতন এবং আত্নমর্যাদাবান ব্যক্তি’।

প্রশ্নপত্রটিতে উদ্দীপকের আলোকে জ্ঞান, অনুধাবন, প্রয়োগ এবং উচ্চতর দক্ষতামূলক ৪টি প্রশ্ন করা হয়। প্রশ্নগুলো হলো- ‘আকাইদ কী?, ‘ইসলামের নাম ইসলাম রাখা হয়েছে কেন?’, ‘বিজ্ঞ আলেমের বক্তব্যে যে বিষয়টি ফুটে উঠেছে, তা আমাদের জীবনে কী প্রভাব ফেলতে পারে তা ব্যাখ্যা করো’। এবং তরুণদের উদ্দেশ্যে দেয়া সেফুদার বক্তব্যটি কিসের শামিল? এর ফলাফল বিশ্লেষণ করো’।

সেফুদা হলেন একজন বিতর্কিত ফেসবুক সেলিব্রেটি। তিনি বর্তমানে থাকেন অস্ট্রিয়াতে। তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। ১৯৯০ সাল থেকে তিনি অস্ট্রিয়ার রাজধানীর ভিয়েনায় বসবাস করছেন। তার পরিবারের দেয়া তথ্যমতে তিনি বিভিন্ন মানসিক রোগে আক্রান্ত।

ভার্চুয়াল জগতে লাইভে এসে বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলার সময় তার কিছু বিশেষ ডায়ালগ তরুণ প্রজন্মের অনেক ছেলে-মেয়েদের কাছে জনপ্রিয় (বিতর্কিত) হয়। এসব ডায়ালগের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ‘মদ খা, মানুষ হ’, ‘কী? হিংসে হয়, আমার মতো হতে চাও’ ইত্যাদি।

দেশের স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রাজউক স্কুলের প্রশ্নপত্রে সেফাত উল্লাহকে উল্লেখ করার বিষয়টি অনেকের কাছেই অপ্রত্যাশিত মনে হয়েছে। ফলে প্রশ্নটি কারো কাছে হাসির বিষয়, আবার কারো কাছে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রশ্নপত্র তৈরি করার জন্যে গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছে। এসব নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা, পাল্টা সমালোচনা চলছে।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.