• ০৭ জুলাই ২০১৯ ১৭:৪৯:৩৮
  • ০৭ জুলাই ২০১৯ ১৭:৪৯:৩৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

ময়মনসিংহে কাউন্সিলরের মিষ্টির কারখানায় হামলার অভিযোগ

ফাইল ছবি

​ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরধরে সদ্য সাবেক কাউন্সিলর শরাফ উদ্দিনের দি নিউ "বিউটি সুইট মিট" নামে দোকান ঘর ও মিষ্টি কারখানায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও মালামাল লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এ ঘটনায় রবিবার (৭ জুলাই) সকালে  শরাফ উদ্দিন বাদি হয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় ৪ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনকে আসামি একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিরা হলেন- মনিরুজ্জামান মনি (৪৫), হারুন অর রশিদ লিটন (৪৮), স্ত্রী রাজু বেগম (৪৫), সিফাত ওরফে আদর (২০) ও অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জন আসামি রয়েছে।

এর আগে শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে নগরীর সেহড়া মুন্সিবাড়ী এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় হামলার সাথে জড়িত মনির হোসেন ও লিটনকে আটক করেছে পুলিশ।

কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বিবরনে জানা যায়, কাউন্সিলর শরাফ উদ্দিন স্থানীয় এক লোকের কাছ থেকে বায়না সূত্রে রেজিস্ট্রিমূলে জমি কিনে সেখানে দি নিউ "বিউটি সুইট মিট" নামে একটি মিষ্টির করাখানা গড়ে তোলেন। সেই জমি দখল নিতে মনির গংরা বেশ কিছু দিন ধরে পায়তারা করছে। পরে গত শনিবার বিকেলে মনির হোসেন ও তার ভাই লিটন অস্ত্রসহ এলাকার লোকজন নিয়ে দোকান ঘর ও মিষ্টির কারখানায় অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় নগদ টাকাসহ কারখানায় থাকা মালমাল লুট করে নিয়ে যায়। এতে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে মামলায় উল্লেখ করেন কাউন্সিলর শরাফ।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর শরাফ উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, ‘শনিবার বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে মনির হোসেন ও তার ভাই লিটন অস্ত্রসহ ৫০/৬০ জন লোক নিয়ে এসে প্রথমে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ও ককটেল ফাটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক তৈরি করে মিষ্টি কারখানায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। ভাঙচুরের তান্ডবের এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা ক্যাশে থাকা নগদ ১ লাখ ৩৯ হাজার টাকা, ২টি মোবাইল ফোনসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন শরাফ। 

অন্যদিকে অভিযুক্ত মনির হোসেন জানান, মায়ের পারিবারিক জমি চক্রান্ত করে জাল দলিল তৈরি করে তার মামা স্বপন মিয়া বিক্রি করে দিয়েছেন। মায়ের জমি উদ্ধারেই স্থানীয় লোকজন নিয়ে এসে মিষ্টির দোকানে হামলা করার কথা জানান তিনি।

স্থানীয় সিটি কাউন্সিলর আব্দুল মান্নান জানান, জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। আদালতে জমি নিয়ে মামলা থাকা অবস্থায় এভাবে মিষ্টি দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটানো ঠিক হয়নি। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তিনিও বিচার দাবি করেছেন।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

ময়মনসিংহ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0196 seconds.