• ০৪ জুলাই ২০১৯ ১৮:৫৫:১০
  • ০৪ জুলাই ২০১৯ ১৮:৫৭:৫৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

নিজেকে বড় পর্দায় দেখার অপেক্ষায় আছি: সূচনা আজাদ

অভিনেত্রী সূচনা আজাদ। ছবি: সংগৃহীত

‘আব্বাস’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাচ্ছে আগামী ৫ জুলাই। এ চলচ্চিত্রে কাজের অভিজ্ঞতা, নিজের চরিত্র ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে বাংলা’র সঙ্গে কথা বলেছেন সূচনা আজাদ।

এর আগে ছোট পর্দায় কাজ করেছেন। প্রথমবার চলচ্চিত্রে কাজ করলেন, কাজের অভিজ্ঞতা বলুন...

আমি খুবই সৌভাগ্যবান। শুরুতেই ‘আব্বাস’ এর মতো একটি চলচ্চিত্রে কাজ করতে পেরেছি। প্রথমে অনেক নার্ভাস ছিলাম। তবে পরে অনেক আনন্দ নিয়ে কাজটি করেছি। পুরো সময়টা উপভোগ করেছি। চলচ্চিত্রটির জন্য সবাই অনেক কষ্ট করেছে। রোজার সময় আমাদের শুটিং করতে হয়েছে। যেহেতু প্রথম চলচ্চিত্র, আমার চরিত্রটি দাঁড় করাতে সবার সহযোগিতাই পেয়েছি। বিশেষ করে আমার সহশিল্পী নিরব ভাইয়া অনেক সাহায্য করেছেন। সব মিলিয়ে কাজটি সুন্দরভাবে শেষ করতে পেরেছি।

প্রথমবার নিজেকে বড়পর্দায় দেখবেন, কেমন লাগছে?

আমি অনেক এক্সাইটেড। শুরু থেকেই স্বপ্ন ছিল চলচ্চিত্রে কাজ করব। সেই স্বপ্নটা পূরণ হতে যাচ্ছে এটা ভেবেই ভালো লাগছে। আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছি নিজেকে বড়পর্দায় দেখার জন্য। চলচ্চিত্রে কাজের মজাটা ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। প্রচারণার জন্য আমি আর নিরব ভাইয়া একসঙ্গে চ্যানেলগুলোতে যাচ্ছি। নিজের চলচ্চিত্রের প্রচারের জন্য নাটকের শুটিংও কমিয়ে দিয়েছি।

ছবিতে আপনার চরিত্র নিয়ে বলুন... 

আমার চরিত্রটা একেবারে ভিন্নধর্মী। অভিনয়ের অনেক জায়গা ছিল। গতানুগতিক নায়িকাদের যে ধরনের চরিত্রে দেখা যায়, সেরকম না। আমার চরিত্রের নাম ডালিয়া। অনেক সাহসী একটা মেয়ে ডালিয়া। সে খুবই এলোমেলো ও অগোছালো জীবন-যাপন করে। আমি আমার শতভাগ দিয়ে কাজটি করেছি। অনেক পরিশ্রম করেছি নিজের চরিত্রের জন্য।

সহ-শিল্পী হিসেবে নায়ক নিরব কেমন?

খুব মিশুক প্রকৃতির একজন মানুষ। নিরব ভাইয়া অনেক আগে থেকেই চলচ্চিত্রে কাজ করছেন। অনেক অভিজ্ঞ তিনি এই জায়গায়। প্রত্যেকটা সময় আমাকে সাহায্য করেছেন। কাজের সময় তার পরামর্শ অনেক কাজে দিয়েছে।

‘আব্বাস’ নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কতটুকু?

দর্শকের অনেক আগ্রহ দেখতে পাচ্ছি চলচ্চিত্রটি নিয়ে। আমার মনে হয়, দর্শক ভিন্নধর্মী কাজ দেখতে চায়। ‘আব্বাস’ দেখলে দর্শকের টাকা উসুল হয়ে যাবে। আমার মনে হচ্ছে, দর্শকরা চলচ্চিত্রটি খুব ভালোভাবে গ্রহণ করবে।

চলচ্চিত্রে কাজের অনুপ্রেরণা কোথা থেকে পেয়েছেন?

অভিনয়ের প্রতি ঝোঁক ছিল সবসময়ই। ছোটবেলায় থিয়েটারের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। তখন থেকেই স্বপ্নটা শুরু হয় চলচ্চিত্র নিয়ে। অভিনয় শিখেছি থিয়েটার থেকেই। আমার মনে হয় চলচ্চিত্র বা টিভি নাটকে কাজ করার জন্য নিজেকে আগে থেকে তৈরি করা উচিত। থিয়েটারের কাজ করার অভিজ্ঞতা এখন কাজে লাগছে।

চলচ্চিত্র নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা...

নিজেকে আরও প্রস্তুত করতে চাই। চলচ্চিত্রে কাজের জন্য পর্যাপ্ত সময় দরকার। সময় নিয়েই সামনের কাজগুলো করতে চাই। ধীরে ধীরে সামনের দিকে আগাতে চাই। ভালো চরিত্র পেলে অবশ্যই কাজ করব। ইতোমধ্যে কয়েকটি চলচ্চিত্রে কাজের কথা চলছে। তবে মানসম্মত চলচ্চিত্র ছাড়া কাজ করব না।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

সূচনা আজাদ আব্বাস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.