• বিদেশ ডেস্ক
  • ০২ জুলাই ২০১৯ ১৮:৩৯:০৫
  • ০২ জুলাই ২০১৯ ১৮:৩৯:০৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

চুক্তির সীমা ছাড়িয়ে ইউরেনিয়াম মজুদ করছে ইরান

ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

ইরান সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের সীমা বাড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ। সোমবার মধ্যাঞ্চলীয় নাতাঞ্জ শহরে এক অনুষ্ঠানের অবকাশে ইসনা বার্তা সংস্থার এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা নিশ্চিত করেন তিনি। এ ঘটানায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

ইরান ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা পার্স টুডে এমন খবর প্রকাশ করে।

এ সময় মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেন, ‘আমার জানা মতে ইরান সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের ৩০০ কেজির সীমা ছাড়িয়ে গেছে এবং আমরা আগেই এ পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিলাম। আমরা যে ঘোষণা দিয়েছিলাম তা খুবই পরিষ্কার এবং আমরা মনে করি পরমাণু সমঝোতা অনুসারে এটি আমদের অধিকার।’

এদিকে বার্তা সংস্থা রয়টার্স’র বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরানের সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদ সীমা অতিক্রম করার বিষয়টি যাচাই করছে আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ।

এর আগে ১৭ জুন ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার মুখপাত্র বেহরুজ কামালভান্দি জানিয়েছিলেন, ২৭ জুন থেকে তার দেশ পরমাণু সমঝোতার ২৬ ও ৩৬ নম্বর ধারা অনুসারে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মুজদের সীমা মানবে না।

ইরানকে পরমাণু সমঝোতা পুরোপুরি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে একটি বিবৃতি দেয় হোয়াইট হাউজ। মার্কিন সরকার এমন সময় ইরানকে এ সমঝোতা মেনে চলার আহ্বান জানাল যখন ওয়াশিংটন এক বছরেরও বেশি সময় আগে এই চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তার ফেডেরিকা মোগেরিনির মুখপাত্র মায়া কোচিজানচিচ বলেছেন, ইইউ ইরানকে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের পরিমাণ আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছে। ইরান যতদিন পরমাণু সমঝোতা পুরোপুরি মেনে চলবে ইউরোপীয় ইউনিয়নও ততদিন এটি বাস্তবায়ন করে যাবে বলেও দাবি করেন তিনি।

এ বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র বলেছেন, তার সংস্থা কূটনৈতিক অঙ্গনের গুরুত্বপূর্ণ অর্জন হিসেবে সব সময় পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নের ওপর জোর দিয়ে এসেছে। কিন্তু আমেরিকা এ সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কারণে এই আন্তর্জাতিক চুক্তির বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে পড়েছে।

এদিকে রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেন, পরমাণু সমঝোতা ইস্যুতে আমেরিকার পদক্ষেপের কারণে ইরান সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের সীমা অতিক্রম করেছে। ‘এটা বুঝতে হবে যে, আগে যা হয়েছে তার স্বাভাবিক পরিণতি হচ্ছে আজকের ঘটনা।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন ও জার্মানির সাথে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা চুক্তি মোতাবেক ইরান ৩০০ কেজি পর্যন্ত সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদ করতে পারত। তবে ওই সমঝোতার ২৬ ও ৩৬ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে, অপর পক্ষ এ সমঝোতা বাস্তবায়নে ব্যর্থ হলে তেহরান এটির কোনো কোনো ধারার বাস্তবায়ন স্থগিত রাখতে পারবে। সে অনুযায়ী এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করলো ইরান। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম্প ক্ষমতায় এসে এই চুক্তি থেকে সরে যায় দেশটি।

বাংলা/এনএস

সংশ্লিষ্ট বিষয়

পরমাণু ইরান

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0210 seconds.