• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ২৭ জুন ২০১৯ ১৭:২০:৩৭
  • ২৭ জুন ২০১৯ ১৭:২০:৩৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

নাটোরে চুলা বিস্ফোরণে ৩ কলেজছাত্রী দগ্ধ

ছবি : সংগৃহীত

নাটোরে কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে একটি ছাত্রীনিবাসের তিন কলেজছাত্রী দগ্ধ হয়েছেন। এদের মধ্যে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে দুইজনকে। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের বড়গাছা এলাকার জ্যোতি ছাত্রীনিবাসে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দগ্ধরা হলেন- শামিমা খাতুন (১৭), সানজিদা আক্তার (১৭) ও ফাতেমাতুজ্জোহা (১৮)। এরা তিনজনই নাটোরের নবাব সিরাজ উদ দৌলা সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী।

দগ্ধদের মধ্যে শামিমা ও সানজিদাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল বার্ন ইউনিটে পাঠানো হচ্ছে। ফাতেমাতুজ্জোহাকে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে সানজিদা ও ফাতেমাতুজ্জোহার বাড়ি লালপুর উপজেলার আব্দুলপুর এলাকায় এবং শামিমার বাড়ি গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর এলাকায়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শহরের বড়গাছা এলাকার আবুল কাশেমের মালিকানাধীন জ্যোতি ছাত্রীনিবাসে থাকতেন এই তিন ছাত্রী। সকালে তারা একটি কেরোসিনের চুলায় রান্না করছিলেন। হঠাৎ করে চুলাটি বিস্ফোরিত হলে তারা দগ্ধ হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে সানজিদা ও শামিমাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের ঢামেক হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। 

রাজশাহী মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসক ওয়াসিম হোসেন জানান, শামিমা ও সানজিদার শরীরের প্রায় ৫০ শতাংশ পুড়ে গেছে। দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কেরোসিনের চুলা রান্নার সময় বিস্ফোরিত হলে ওই তিনজন দগ্ধ হন।

বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

নাটোর দগ্ধ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0230 seconds.