• বিদেশ ডেস্ক
  • ১৮ জুন ২০১৯ ২১:৪০:৫৭
  • ১৮ জুন ২০১৯ ২১:৪০:৫৭
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে কায়রোতে কবর দেয়া হলো মুরসিকে

মোহাম্মদ মুরসি ছবি : সংগৃহীত

মিশরের ক্ষমতাচ্যুত এবং গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার সকালে রাজধানী কায়রোর উত্তরাঞ্চলে কবর দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুরসির পুত্র আহমেদ মুরসি।  এসময় মুরসির পরিবারের সদস্যরা এবং তার আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।    

মঙ্গলবার আহমেদ মুরসি তার ফেসবুক পেজে জানান, মুসলিম ব্রাদারহুডের জ্যেষ্ঠ নেতাদের পাশে চিরতরে শায়িত হয়েছেন তার পিতা মোহাম্মদ মুরসি।   

সোমবার আদালতে উপস্থিত হয়ে বিচারকের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখার এক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে যান ৬৭ বছর বয়সি মোহাম্মদ মুরসি। এরপর হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেই তিনি মারা যান।  

মুরসির পরিবারের সদস্যরা তার জন্মস্থান শারকিয়া প্রদেশে তাকে কবর দেয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের অনুমতি চেয়েছিলেন, কিন্তু তাদের সেই আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়। এরপর তাকে কায়রোর মাদিনাত নাসর এলাকায় কবর দেয়া হয়।  

আহমেদ মুরসি লিখেন,‘তোরা কারাগার হাসপাতালে তাকে গোসল করানো হয়। এরপর কারাগার মসজিদে তার জানাযা পড়ানো হয়।  পরবর্তীকালে মুসলিম ব্রাদারহুডের অন্যান্য নেতাদের পাশে তাকে কবর দেয়া হয়। ’

এদিকে মুরসির আইনজীবী আব্দেল মুনিম আব্দেল মাকসুদ নিশ্চিত করেন, আল ওয়াফা ওয়া আল আমাল কবরস্থানে মঙ্গলবার সকালে তাকে দাফন করা হয়।   

উল্লেখ্য, ড. মোহাম্মদ মুরসি মুসলিম ব্রাদারহুডের শীর্ষস্থানীয় একজন নেতা।  ২০১২ সালে তিনি মিশরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। তিনিই ছিলেন মিশরের জনগণ দ্বারা গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট।  কিন্তু ২০১৩ সালে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করে তৎকালীন সেনা প্রধান এবং বর্তমান প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসি।  এরপর তাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে ঢুকানো হয়।  পরবর্তীকালে বিচারের নামে চলে প্রহসন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি মিশরের কারাগারে বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত হয়ে বিচারের অপেক্ষায় ছিলেন।  

বাংলা/ এফকে

 

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0220 seconds.