• বাংলা ডেস্ক
  • ১২ জুন ২০১৯ ১৫:০১:৩৫
  • ১২ জুন ২০১৯ ১৯:২২:১০
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

বাংলাদেশকে জড়িয়ে ভারতের ঘৃণার ‌‌‌‘মওকা’, পাল্টা জবাব পাকিস্তানের!

ছবি : সংগৃহীত

খেলা নিয়ে ফেসবুকে সাধারন দর্শকদের মত পার্থক্য দ্বন্দ্ব, এবং তা থেকে ঘৃণার উদগীরণ নতুন কিছু নয়। যখন কোন গোষ্ঠী, সংগঠন বা প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে এই চর্চাটাকে উসকে দেয়া হয় তখন সেটা সামাজিক ঘৃণার চাষে সার দেয়ার মতোই কাজ করে। আর বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মতো বড় আসরে সেটা আরো বেশি প্রভাব ফেলবে এটাই স্বাভাবিক।

এবারো তেমনটাই হয়েছে। আবারো এসেছে সেই ঘৃণা ছড়ানো ‘মওকা মওকা’ বিজ্ঞাপন। হেয় করা হয়েছে বাবা দিবসকেও।

বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচকে ঘিরে চলছে উত্তেজনা। আর সেই উত্তেজনার ভেতরই ছাড়া হলো ‘মওকা মওকা’ ভিডিওটি। এবারো শুরুটা ভারতের পক্ষ থেকে হয়েছে। ভারতীয় চ্যানেল স্টার স্পোর্টস ভারত পাকিস্তান ম্যাচকে ঘিরে পাকিস্তানিদের ট্রল করতে বানিয়েছে ‘মওকা মওকা’ ভিডিও। সেই ভিডিওতে পাকিস্তানের সাথে জড়ানো হয়েছে বাংলাদেশকেও। এর পাল্টা জবাব দিয়ে পাকিস্তানি টিভি চ্যানেল জাজ বানিয়েছে মওকা মওকার আরেকটি প্রমোশনাল ভিডিও। তারা সেই ভিডিওতে ব্যঙ্গ করতে বেছে নিয়েছে ভারত পাকিস্তানের কাশ্মির যুদ্ধে আটক হওয়া বৈমানিক অভিনন্দন চরিত্রটিকে।

ভারতের স্টার স্পোর্টস চ্যানেলের নির্মিত বিজ্ঞাপনে দেখানো হয়, বাংলাদেশের জার্সি পরা এক তরুণ পাকিস্তানের সমর্থক। ওই তারুণকে দিয়ে উর্দু ভাষায় কথা বলানো হয়। বাংলাদেশের জার্সি গায়ে ওই তরুণ ভাইজান সম্বোধন করে পাকিস্তানি এক সমর্থককে বলে ভাইজান মওকা মওকা সপ্তম বার। তখন, পাকিস্তানি ওই সমর্থককে বলতে শোনা যায় তার বাবার উৎসাহ যোগানো কথা। ‘বারবার পরাজিত হলেও চেষ্টা ছাড়া উচিত নয়’- বাবার বলে যাওয়া এই ধরনের কথা বলছেন তিনি।

তখন পাশের সোফায় বসে থাকা ভারতীয় জার্সি গায়ে এক সমর্থক বলে ‘চুপ কর পাগলা আমি কখনো এ কথা বলেছি’, অর্থাৎ ভারতীয় ওই সমর্থক নিজেদের পাকিস্তানের বাবা হিসেবে মন্তব্য করে। উত্তরে পাকিস্তানি সমর্থক কাঁচু মাঁচু খেয়ে বলে ‘না আপনি না আমার আব্বু এ কথা বলেছেন...।’

সবশেষে ভারত পাকিস্তান ম্যাচের তারিখ ১৬ জুন উল্লেখ করার পাশাপাশি বাবা দিবসের শুভেচ্ছা জানানো হয়। পাশে চোখ মারার একটি টিটকারিমূলক ইমোটিক চিহ্ন প্রকাশ করা হয়!

এর জবাবে পাল্টা ভিডিও বানিয়েছে পাকিস্তানি টিভি চ্যানেল জাজ। ভিডিওটিতে দেখা যায়, পাকিস্তানের হাতে আটক হওয়া সেই আলোচিত ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দনের মতো এক ব্যক্তিকে ভারতের জার্সি গায়ে। এখানে অভিনন্দনের আদলেই তাকে সাজানো হয়েছে সেই সিগনেচার গোঁফের ব্যবহার করে।

জার্সি গায়ে অভিনন্দের মতো একজনকে চায়ের কাপ হাতে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতীয় দলের পরিকল্পনাবিষয়ক নানা প্রশ্ন করা হয়, সব প্রশ্নের উত্তরেই তার মুখ থেকে বারবার শোনা গেছে একটাই সংলাপ, ‘স্যরি, আই অ্যাম নট সাপোজড টু টেল ইউ স্যার।’ যে ধরনের উত্তর দিয়েছিলো পাকিস্তানি সেনাদের ওই ভারতীয় বৈমানিক সে ধরনের উত্তরই দিচ্ছিলো অভিনন্দন।

বিজ্ঞাপনের শেষে দেখা যায় চরিত্রটি বেরিয়ে যাচ্ছিল হাতে ওই চায়ের কাপ নিয়ে। তখনই পিছন থেকে তাকে কেউ থামিয়ে বলে, ‘একটু দাঁড়ান! কাপ নিয়ে কোথায় যাচ্ছেন?’ অর্থাৎ ওই বৈমানিকের ‘হাত সাফাইয়ের’ (চুরি) অভ্যাস আছে এমন ইঙ্গিত দেয়া হয়। যার মাধ্যমে ভারতীয়দের বিরুদ্ধে কারচুপির অভিযোগের ইঙ্গিত রয়েছে।

এইসব ভিডিও মাধ্যমে দুই দেশের সমর্থকদের ভেতরই উগ্র সমর্থনের ঘৃণার বিষ ছড়ানো শুরু হয়ে গেছে। খেলাকে ঘিরে শুরু হওয়া এইসব ‘মওকা মওকা’ মূলত দেশে দেশে সাধারণ জনগণের ভেতরকার সম্প্রীতিই নষ্ট করে বলে মন্তব্য করছেন অনেকে।

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0271 seconds.