• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১০ জুন ২০১৯ ১৭:৫৭:৫৮
  • ১০ জুন ২০১৯ ২০:০৪:৫৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

দুদকের পরিচালক বাসির সাময়িক বরখাস্ত

খন্দকার এনামুল বাসির ও মিজানুর রহমান। ছবি : সংগৃহীত

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তদন্তের মুখে থাকা পুলিশের ডিআইজি মিজানুর রহমানের কাছে তথ্য ফাঁস করায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদকের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় প্রধান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘অনুসন্ধানের তথ্য অভিযুক্ত ব্যক্তির কাছে প্রকাশ করায় চাকরির শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে বাসিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া ঘুষ লেনদের অভিযোগের বিষয়ে আলাদা একটি বিভাগীয় তদন্ত করা হবে।’

ডিআইজি মিজানের কাছ থেকে তার অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা এনামুল বাসির তথ্য জানানোর মাধ্যমে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এ অভিযোগে গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্তের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে তদন্তকাজ থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

গত বছর নারী নির্যাতনের অভিযোগে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয় পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমান। এরপর তার বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের তথ্য প্রকাশ হলে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এই তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন দুদকের পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির। তবে তদন্ত চলাকালেই প্রাপ্ত তথ্য অভিযুক্তের কাছে চালান করে দিয়ে তাকে ভয়-ভীতি দেখানোর মাধ্যমে দুই দফায় ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নেন খন্দকার এনামুল বাসির।

চুক্তি ছিল টাকার বিনিময়ে মিজানুর রহমানকে অব্যাহতি দেবেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন জমা দেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে অবৈধ লেনদেনের এই ঘটনা ফাঁস করে দুদকের কাছে এনামুল বাসিরের বিরুদ্ধে সম্প্রতি নালিশ করেন ডিআইজি মিজানুর রহমান। তার অভিযোগকে আমলে নিয়ে এনামুল বাসিরের বিরুদ্ধে বিষয়টি তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক।

এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করে দুর্নীতি দমনকারী সংস্থাটি। যদিও দুদক পরিচালক এনামুল বাসির অভিযোগটি অস্বীকার করেন। এরপর গতকাল রবিবার (৯ জুন) বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী আজ এনামুল বাসিরের বিরুদ্ধে এ সিদ্ধান্ত নিল দুদক।

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.