• বিদেশ ডেস্ক
  • ১০ জুন ২০১৯ ১৭:৪৭:২৯
  • ১০ জুন ২০১৯ ১৭:৪৭:২৯
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

শিশু মুর্তজার ফাঁসি না দেয়ার আহ্বান অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের

ছবি : পার্স টুডে থেকে নেয়া

সৌদি আরবে সদ্য মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হতে যাওয়া যুবক মুর্তজা কুরেইরিসকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। দেশটির ইস্টার্ন প্রদেশে ১০ বছর বয়সে সরকারবিরোধী স্লোগান দেওয়ার কারণে রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধে মুর্তজাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়।

মুর্তজার এ দণ্ডাদেশ আর্যকর হলে এটিই হবে দেশেটির ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী কারো মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ার ঘটনা। ইরান ভিত্তিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম পার্স টুডে এমন খবর প্রকাশ করেছে।

বর্তমানে মুর্তজাকে দাম্মাম শহরের পূর্ব দিকে অবস্থিত একটি কিশোর কারাগারে রাখা হয়েছে। আটকের পর চার বছরের মধ্যে তার সঙ্গে কোনো আইনজীবীর দেখা করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

এ বিষয়ে অ্যামনেস্টি পক্ষ থেকে জানানো হয়, আটকের পর মুর্তজার উপর চরম নির্যাতন চালানো হয়। তাকে মিথ্যা প্রলোভন দেখানো হয় যে, যদি সে নিজের অপরাধ স্বীকার করে নেয় তবে ছেড়ে দেয়া হবে। তবে সৌদি সরকার এ বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি ।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে ইসলামি গণজাগরণের উত্তাল সময়ে সৌদি রাজতন্ত্রের নিপীড়ন-নির্যাতনের বিরুদ্ধে এবং গণতন্ত্র দাবিতে সে সময় দেশজুড়ে গণবিক্ষোভের সূচনা হয়েছিলো। সেই আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিজ বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে সাইকেল রাইডে নেমেছিল মুর্তজা। এই অল্পবয়সী বালকদের জড়ো হওয়ার বিষয়টি ‘পর্যবেক্ষণ’ করে দেশটির সরকার।

এর তিন বছর পর ওই বিক্ষোভে অংশ নেয়ার কারণে মুর্তজাকে ১৩ বছর বয়সে গ্রেপ্তার করে সৌদি রাজতন্ত্রের বাহিনী। পরিবারের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশ বাহরাইনে চলে যাওয়ার সময় সীমান্তে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সৌদি আরবের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী ‘রাজনৈতিক বন্দী’ হিসেবে তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

মুর্তাজার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রে বলা হয়, মুর্তজার ভাই আলী কুরেইরিস মোটরসাইকেলেযোগে পূর্বাঞ্চলীয় শহর আওয়ামিয়াতে গিয়ে থানায় পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করেন, ওই সময় তার সঙ্গে ছিল মুর্তজাও। মুর্তজার ভাইকেও পরে নির্মমভাবে হত্যা করে সৌদি নিরাপত্তা বাহিনী।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0227 seconds.