• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ১৬ মে ২০১৯ ২২:৩১:৫৬
  • ১৬ মে ২০১৯ ২২:৩৪:১৮
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

কবরের জায়গা খুঁজছেন এরশাদ

এইচএম এরশাদ। ছবি : সংগৃহীত

জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা এইচএম এরশাদ নিজের জন্য কবরের জায়গা খুঁজছেন। অসুস্থতার কারণে তিনি একা হাটা-চলাফেরা করতেও পারছেন না। এমন অবস্থায় এরশাদের পরামর্শে তার ঘনিষ্ঠ কয়েকজন রাজধানী ও আশপাশে কবরের জন্য একাধিক সম্ভাব্য স্থান খুঁজে দেখেছেন।

এ কাজের সাথে যুক্ত কয়েকজন জানান, এরশাদের ইচ্ছা মৃত্যুর পর যেন ঢাকায় তাকে সমাহিত করা হয় এবং কবরের কাছে যেন মসজিদ ও মাদ্রাসা থাকে। এই রকম উপযুক্ত স্থান না পাওয়া গেলে রংপুরে সমাহিত করার কথা জানিয়েছেন তিনি।

আরো জানা যায়, এরশাদের ইচ্ছা অনুযায়ী ইতোমধ্যে বনানী কবরস্থানে স্থায়ী জায়গা কেনার বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বিকল্প হিসেবে রাজধানীর বারিধারায় আমেরিকান সেন্টারের কয়েকশ গজ উত্তরে একটি মাদ্রাসা ও এতিম খানার কাছে জায়গা দেখা হয়েছে। এছাড়া পূর্বাচলের কাছেও একটি জায়গা দেখেছেন তারা। তবে কোনোটিই এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

এদিকে বনানীতে ভাড়ায় নেয়া এরশাদের রাজনৈতিক কার্যালয়টি ছেড়ে দিচ্ছেন তিনি। এমনকি বাড়িটি খালি করে দিতে এরশাদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তাদের নোটিশ পাঠিয়েছেন। ঈদের পরেই কার্যালয়টি ফাঁকা করে দেয়া হবে জানা গেছে।

এ বিষয়ে এরশাদের ব্যক্তিগত সচিব ও জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর (অব.) খালেদ আখতার জানান, এরশাদ সাহেব অফিসটি ছেড়ে দিতে চাচ্ছেন। তাছাড়া বাড়ির মালিকের সাথে চুক্তির মেয়াদও শেষ হয়ে যাচ্ছে। তাই অফিসটি ছাড়ার প্রস্তুতি চলছে। বনানীর এ কার্যালয়টিতে এরশাদ নিয়মিত বসতেন। আর এখান থেকেই জাপার রাজনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনা করতেন।

তার ব্যক্তিগত সচিব, প্রেস সচিব, ডেপুটি প্রেস সচিব, কোষাধ্যক্ষসহ ১০ জনের একটি দল প্রতিনিয়ত কাজ করতো এখানে। এছাড়াও এরশাদ এ কার্যালয়ে বসেই বিদেশী কুটনীতিকদের সাক্ষাত দিতেন। আর বিদেশী প্রতিনিধিরাও এখানে নিয়মিত আসা-যাওয়া করতেন।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0173 seconds.