• বিদেশ ডেস্ক
  • ০৪ মে ২০১৯ ২১:৩২:৪৬
  • ০৪ মে ২০১৯ ২১:৩২:৪৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

সৌদিদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক চায় ইরান

জাভাদ জারিফ, ছবি : সংগৃহীত

প্রতিদ্বন্দ্বী সৌদি আরব এবং তার মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে শত্রুতা পরিহার করে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে ইরান।  দেশটির আশা অচিরেই মধ্যপ্রাচ্যের দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দেশের মধ্যে ভালো সম্পর্ক তৈরি হবে।  এছাড়া কাতারের সঙ্গেও সৌদি জোটের বিরোধ অবসানের আহ্বান জানিয়েছে ইরান।

বুধবার কাতারের রাজধানী দোহায় সাংবাদিকদের কাছে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভাদ জারিফ এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।  কাতারকে কেন্দ্র করে উপসাগরীয় দেশগুলোর মধ্যে সৃষ্ট বিরোধে নিরপেক্ষ দেশের ভূমিকায় রয়েছে কুয়েত এবং ওমানের নাম।  এই দেশগুলোর নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাদের সঙ্গে আমাদের খুবই ভালো সম্পর্ক রয়েছে।  এছাড়া কাতারের সঙ্গেও ইরান ভালো সম্পর্ক বজায় রেখেছে।  প্রসঙ্গত, এশিয়ান সহযোগিতা সংলাপে অংশ নেয়ার জন্য ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাতার সফর করেন।

জারিফ জানান, জিসিসি’র(গালফ কোঅপারেশন কাউন্সিল) দেশগুলোর মধ্যে বর্তমানে যে বিরোধ চলছে তার শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় ইরান।  এছাড়া কাতারের উপর সৌদি জোটের যে চাপ অব্যাহত রয়েছে সেটির যেন অবসান ঘটে।  কারণ কাতারের উপর এধরনের চাপ আন্তর্জাতিক আইনের লংঘন।   

উল্লেখ্য, সৌদি আরব, কুয়েত, বাহরাইন, আরব আমিরাত, ওমান এবং কাতার জিসিসিভুক্ত দেশ।  সন্ত্রাসবাদে অর্থ দেয়ার অভিযোগে সৌদি আরব, বাহরাইন, আরব আমিরাত এবং মিশর কাতারকে একঘরে করে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় এবং ২০১৭ সালের জুনে দেশটির উপর অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করে।  

যদিও কাতার এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছে, সন্ত্রাস প্রতিরোধ নয় বরং কাতারের শাসক পরিবর্তনের লক্ষ্যেই সৌদি জোট এই অবরোধ আরোপ করেছে তাদের উপর।  

এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষেত্রে ইরানের সঙ্গেও সৌদি আরবের বিরোধ রয়েছে।  ২০১৬ সালে সৌদি শিয়া মতাবলম্বী নিমর আল নিমরের ফাঁসি দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইরানের সৌদি দূতাবাসে আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। এই ঘটনার পরে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে দেয় সৌদি আরব।  

বাংলা/এফকে

 

 

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0234 seconds.