• বিদেশ ডেস্ক
  • ০২ মে ২০১৯ ২১:৪০:০৪
  • ০২ মে ২০১৯ ২১:৪০:০৪
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন
বিজ্ঞাপন

তুতেনখামেনের আগে মিশর শাসন করতেন দুই রানী

ছবি : সংগৃহীত

 ফারহানা করিম:    

তুতেনখামেন প্রাচীন মিশরের বালক রাজা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তার শাসনামলের আগে দুই জন রানী যৌথভাবে মিশর শাসন করতেন বলে দাবি করেছেন একজন মিশর বিশেষজ্ঞ।  এরা অবশ্য তুতেনখামেনের বোন ছিলেন।  কানাডার ইউনিভারসিতে দু কুইবেক অ্যা মন্ত্রিয়ল(ইউকিউএএম) এর মিশর বিশেষজ্ঞ ভ্যালেরি এঞ্জেনট সম্প্রতি এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।    

অর্ধ শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে গবেষকদের ধারণা ছিল তুতেনখামেনের আগে মাত্র একজন রানীই মিশর শাসন করতেন।  প্রসঙ্গত, গবেষকরা ১৯২২ সালে তুতেনখামেনের প্রায় অক্ষত কবর আবিষ্কার করেন।এই আবিষ্কার সেসময় বিশ্বজুড়ে ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছিল।     

অনেকেই ধারণা করেছিলেন, তুতেনখামেনের আগে যিনি মিশর শাসন করতেন তিনি রানী নেফারতিতি।  নেফারতিতি ফারাও আখেনাতেন এর বোন এবং স্ত্রী ছিলেন।  ফারাও এর মৃত্যুর পর তিনি নিজেকে মিশরের রাজা হিসেবে প্রচার করেন।  

অবশ্য আরেক পক্ষের বিশ্বাস, নেফারতিতি নয় ফারাও আখেনাতেন এর বড় মেয়ে প্রিন্সেস মেরিতাতেন মিশর শাসন করতেন।  

ইউকিউএএম এর ভ্যালেরি এঞ্জেনট জানান, সম্প্রতি তিনি প্রতীক নিয়ে করা বিভিন্ন গবেষণা বিশ্লেষণ করে দেখছেন।  এ সময় তিনি দেখতে পান, ফারাও আখেনাতেনের মৃত্যুর পর তার দুই কন্যা মিশরের শাসনভার গ্রহণ করেন।  কারণ সেসময় তাদের ছোট ভাই তুতেনখামেনের বয়স চার কিংবা পাঁচ বছর ছিল।  অর্থাৎ এতো কম বয়সে তার পক্ষে মিশর শাসন করা সম্ভব ছিল না।  তাই দুই বোন যৌথভাবে এই দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নেন বলে ধারণা করছেন ভ্যালেরি।   

তুতেনখামেনের আগে ফারাও আখেনাতেনের ছয় কন্যার জন্ম হয়েছিল।  অবশ্য পরবর্তীকালে তুতেনখামেন ফারাও হলেও যতদিন দেশ শাসন করেছিলেন বেশিরভাগ সময়ই তিনি বিভিন্ন অসুখে আক্রান্ত ছিলেন। 

ফারাও আখেনাতেন কন্যা মেরিতাতেনকে বিয়ে করেছিলেন। এই বিয়ের উদ্দেশ্য ছিল মেরিতাতেনকে মিশর শাসনের জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তোলা। তবে কিছু মিশরীয় লিপিতে ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে, আখেনাতেন তার অপর কন্যা নেফারনেফারুআতেন তাসেরিতকেই মিশরের পরবর্তী শাসক হিসেবে তৈরি করেছিলেন।    

তবে ভ্যালেরি এঞ্জেনট এর ধারণা, মেরিতাতেন এবং নেফারনেফারুআতেন সর্বজনীন একটি নাম ব্যবহার করে যৌথভাবে মিশরের সিংহাসনে আরোহণ করেন।  

মিশরের আমেরিকান রিসার্চ সেন্টারে সম্প্রতি ভ্যালেরির গবেষণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপিত হয়।  এছাড়া আলেকজান্দ্রিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় বার্ষিক সম্মেলনেও তার এই তত্ত্ব অনেকেই গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।    

ভ্যালেরি আশা করেন, তার এই তত্ত্ব প্রাচীন মিশরের ফারাওদের উত্তরাধিকারের ধারাবাহিকতার ব্যাপারে মানুষকে অনেক কিছুই জানতে সাহায্য করবে।  

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0227 seconds.