• বিদেশ ডেস্ক
  • ৩১ মার্চ ২০১৯ ২০:২২:৫৬
  • ৩১ মার্চ ২০১৯ ২০:২২:৫৬
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ইংরেজি ভালো বলা যায় অ্যালকোহল খেলে: গবেষণা

ছবি: সংগৃহীত

অ্যালকোহল দিয়ে ওষুধ তৈরীর কথা কম বেশি আমরা সবাই জানি। কিন্তু কখনো কি শুনেছেন অ্যালকোহল খেলে ভালো ইংরেজি বলা যায়? অবাক শোনালেও এমন খবর জানালো একদল গবেষক। এই গবেষকদের তথ্য মতে, ইংরেজি শিখছেন এমন ব্যক্তিরা অ্যালকোহল খেলে সাবলীলভাবে ইংরেজি বলতে পারেন।

সম্প্রতি জার্মান কিছু শিক্ষার্থীদের ওপর পরিচালিত এক গবেষণা শেষে এমন তথ্য প্রকাশ করে ব্রিটিশ গবেষকরা। তাদের এই গবেষণা পত্রটি এ সপ্তাহে প্রকাশিত হয় জার্নাল অব সাইকোফার্মাকোলোজিতে।

গবেষকরা জানান, মাতৃভাষা ব্যতিত দ্বিতীয় যে কোন ভাষা শেখার ক্ষেত্রে একই কথা প্রযোজ্য। এর মানে হলো, পরিমিত মাত্রায় অ্যালকোহল খেলে সাবলীলভাবে দ্বিতীয় ভাষায় কথা বলতে পারবেন যে কেউ। এর মূল কারণ হিসেবে তারা বলেন, ‘অ্যালকোহল খেলে নার্ভাসনেস ও দ্বিধা কেটে যায়।’

গবেষণাটি পরিচালনা করা হয় ৫০ জন জার্মান শিক্ষার্থীদের উপর। তারা সবাই নেদারল্যান্ড-জার্মানী সীমান্ত সংলগ্ন মাসট্রিক্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং ইংরেজি শিখতে শুরু করেছেন। প্রথমে তাদের ৫০ জনকে সমান দুইভাগে ভাগ করা হয়। এরপর অর্ধেক শিক্ষার্থীকে সীমিত মাত্রায় অ্যালকোহল খাওয়ানো হয়, ইংরেজিতে কথা বলার একটি পরীক্ষা নেয়ার আগে। আর বাকি অর্ধেক শিক্ষার্থীদের খাওয়ানো হয় পানি।

তারপর দু’দল শিক্ষার্থীর পরীক্ষা থেকে সংগ্রহ করা হয় অডিও রেকর্ড। সেই রেকর্ডটি গবেষণার সঙ্গে যুক্ত নন এমন শিক্ষকদের পরীক্ষা করতে বলা হয়। তবে সেই শিক্ষকদের কেউ অ্যালকোহল খাওয়ানোর কথাটি জানতেন না।

পরীক্ষকদের দেয়া ফলাফলে দেখা যায় যে, অ্যালকোহল খাওয়ানো হয়েছে এমন শিক্ষার্থীরা অন্যগ্রুপের তুলনায় অনেক বেশি নম্বর পেয়েছেন।

এদিকে পরীক্ষার ফল প্রকাশ করার আগে অ্যালকোহল খাওয়ানো শিক্ষার্থীদের কাছে কেমন পরীক্ষা দিয়েছে জানতে চাওয়া হলে তাদের বেশিরভাগই বলে পরীক্ষা ভালো হয়নি।

এ সময় গবেষকরা আরো জানায়, অ্যালকোহল খেলে দ্বিতীয় ভাষা ভালো বলতে পারার কারণ, এটি মানুষের নার্ভাসনেস ও দ্বিধাকে কাটিয়ে দেয়। সাধারণত মাতৃভাষা ছাড়া অন্য কোনো ভাষায় কথা বলতে গেলে মানুষের মধ্যে নার্ভাসনেস বেশি কাজ করে।

এছাড়াও একই ভাবে অ্যালকোহলের কারণে মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিশেষত স্মৃতি ও মনোযোগকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। আর অতি-আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়।

বাংলা/এনএস

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.