• নিজস্ব প্রতিবেদক
  • ০২ মার্চ ২০১৮ ২১:৩৪:০৩
  • ০২ মার্চ ২০১৮ ২২:৩৪:২৫
অন্যকে জানাতে পারেন: Facebook Twitter Google+ LinkedIn Save to Facebook প্রিন্ট করুন

ছবিগুলো সিরিয়ার নয়!

সিরিয়ায় আসাদ বাহিনীর হামলায় শিশুদের মৃত্যুর মিছিলের যেসব ছবি পশ্চিমা মিডিয়ায়  প্রকাশ পেয়েছে তার অধিকাংশই পুরানো ছবি। ভাইরাল হওয়া শিশু হত্যার ছবিগুলো যে বেশ পুরোনো ইন্টারনেট ঘেটে তার সত্যতাও মিলেছে। কিন্তু সেগুলোকে বর্তমান সময়ের ছবি বলে চালানো হচ্ছে।

শুধু তাই নয়, অতীতের বিভিন্ন দেশের আলোচিত ঘটনার ছবিকেও সিরিয়ার ছবি বলে দাবি করা হচ্ছে। অথচ এই সব ছবির মধ্যে বেশ কিছু ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যমে অনেক আগেই প্রকাশ হয়েছে।

সম্প্রতি আলোচিত ‘ক্রন্দরত পিতা ও কন্যা’র ছুটে যাওয়ার ছবিটি ২০১৭ সালের ৬ মার্চ ‘বিজনেস ওয়ার্ল্ড’ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিলো। এছাড়া ছোট ভাইয়ের মুখে মাস্ক পরিয়ে দিয়ে মৃত বড় বোনের আলোচিত ছবিটি ২০০৮ সালের!

কিন্তু হঠাৎ করে কেন এই পুরোনো ছবিগুলো দিয়ে প্রপাগান্ডা চালাতে পশ্চিমা মিডিয়াগুলো ব্যস্ত হয়ে উঠলো? কেন প্রকৃত ঘটনার ছবি প্রকাশের চেয়ে ভিন্ন ছবি প্রচার করে গণমাধ্যম সরব রাখা হচ্ছে? এক্ষেত্রে আন্তজার্তিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, ইসরাইলকে স্বীকৃতি না দেয়া সিরিয়ার বিরুদ্ধে এটি একটি ষড়যন্ত্রমূলক পদক্ষেপ। এছাড়া সারা বিশ্বজুড়ে মুসলমানদের ঐক্য বিনষ্ট করা এবং নিজেদের মধ্যে হানাহানি ছড়িয়ে দিয়ে ইসরায়েলের স্বার্থ রক্ষা করা নতুন এ প্রচারণার উদ্দেশ্য হতে পারে। সিরিয়া যুদ্ধে বিভিন্ন দেশের অংশগ্রহণেও রয়েছে রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও প্রাকৃতিক সম্পদ্গত কিছু উদ্দেশ্য।

(১) ক্রন্দরত পিতা ও কন্যা :
এই ছবি প্রচার করে বলা হচ্ছে, সিরিয়ায় বাশার আল আসাদের সরকার বেসামরিক নাগরিকদের নির্মমভাবে হত্যা করছে। অথচ এই ছবি ২০১৭ সালের ৬ মার্চ  ‘বিজনেস ওয়ার্ল্ড’ পত্রিকায় এসেছিল, যার ক্যাপশন ছিল ‘ক্রন্দনরত এক পিতা তার বাচ্চাকে নিয়ে আইএস সন্ত্রাসী কবলিত এলাকা থেকে ইরাকি বাহিনীর দিকে পালিয়ে যাবার সময়’। বিজনেস ওয়ার্ল্ড’র ৬ মার্চ, ২০১৭ তারিখের নিউজ লিংকে গিয়ে এর সত্যতা যাচাই করতে পারেন :
http://www.bworldonline.com/content.php?section=World&title=us-backed-ir...

(২) ছোট বোনকে মাস্ক পরিয়ে মৃত্যুর কোলে বড় বোন:
গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ছবিটি অসংখ্যবার শেয়ার করা হয়েছে। আমাদের দেশীয় গণমাধ্যমেও এ সংবাদ এসেছে। দৈনিক কালের কণ্ঠ’র পরিবেশিত সংবাদে বলা হয়েছে “বিশ্ব বিবেককে জাগিয়ে তুলতে এই একটি ছবিই যথেষ্ট। সিরিয়ায় এক ধ্বংসাত্মক রাসায়নিক গ্যাস হামলায় আহত হয় ছোট বোন। তাই তাকে কোলে নিয়ে অক্সিজেন মাস্ক পরিয়ে ধীরে ধীরে নিজেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো বড় বোন! এই দৃশ্য দেখার পরও কি আমাদের বিশ্ব বিবেক চুপ করে থাকবে? মাত্র একটি ছিল অক্সিজেন মাস্ক আর প্রাণ ছিল দুটি। ছোট বোনের চেয়ে সে নিজেই আহত ছিল বেশী। বর্তমান সিরিয়ায় এরকম হৃদয়বিদারক ঘটনা অহরহই ঘটছে। প্রতিদিন মানুষ মারা যাচ্ছে। মানবতা আজ কোথায়?”

এবার আসা যাক ছবিটি সিরিয়ার কিনা। গুগলে ম্যাচিং সার্চ করে দেখা যায় এটি ২০১৭ সালেও ব্যবহার করা হয়েছিল। তবে ছবিটি আসলে ২০০৮ সালের। মঙ্গোলিয়ায় নির্বাচন পরবর্তী দাঙ্গার সময় তোলা। এবার তা সিরিয়ার বলে চালিয়ে দেয়া হচ্ছে।

(৩) “সিরিয়ায় চলছে এক ভয়ানক দাবার খেল” শিরোনামে দৈনিক কালের কণ্ঠ যে ছবিটি দিয়ে সংবাদ করেছে, সেটি আসাদ সরকারের হামলার ছবি নয়।

২০১৪ সালে খ্রিস্টানদের ওপর আইএসআইএস’র বর্বরতার খবরে এই ছবিটি ছিল। নিচের লিংক থেকে যাচাই করতে দেখতে পারেন।
http://www.thecommentator.com/article/4897/syrian_jihadis_take_aim_at_ch...

(৪) সম্প্রতি এই ছবিটি প্রচার করে সিরিয়ান সরকারের মুন্ডুপাত করা হচ্ছে, অথচ এই ছবি ৩০ অক্টোবর ২০১৩-তে প্রকাশিত ‘অলিম্পিক চ্যানেল’র ‘হ্যালোইন কিডস’ এডিশনের ছবি।

অলিম্পিক চ্যানেলের ৩০ অক্টোবর, ২০১৩ এর নিউজ লিংকে গিয়ে দেখতে পারেন-
http://www.broadsheet.ie/2013/10/30/halloween-kids/

(৫) এই ছবিটি দেখিয়ে বলা হচ্ছে সিরিয়ার, অথচ এটি ২০০৮ সালে মঙ্গোলিয়ায় নির্বাচনোত্তর দাঙ্গার ছবি যা ২ জুলাই, ২০০৮ তারিখ-এ ‘দ্য রাউটার্স’ এ প্রকাশিত হয়েছিল।

প্রমাণ, একই তারিখে নিউজ লিংকের এ গিয়ে দেখে আসতে পারেন-
https://uk.reuters.com/article/us-mongolia/five-dead-in-mongolia-post-el...

(৬) যেভাবে রং মা‌খি‌য়ে সি‌রিয়ায় আহত হওয়ার ভি‌ডিও বানা‌নো হয়:
শিশুদের শরীরে মাটি-বালি লাগিয়ে, রঙ মাখিয়ে গুরুতর আহত বানিয়ে ভিডিও ধারণ করে সিরিয়ান সরকারের বিরুদ্ধে সেগুলোকে ব্যবহার করা হচ্ছে। তার ফাঁস হওয়া ভিডিও দেখতে এই লিংকে যেতে পারেন-
https://www.facebook.com/abusalehbd313/videos/1614718101917219/?hc_locat...

(৭) জীবিত মানুষদের কাফন জড়িয়ে লাশ বানানোর ভিডিও:
জীবিত মানুষদের লাইন ধরে শুইয়ে দিয়ে কাফন জড়িয়ে লাশ বানিয়ে সিরিয়ান সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

তার ফাঁস হওয়া ভিডিও ক্লিপ্স দেখতে এই লিংকে যেতে পারেন-
https://www.facebook.com/abusalehbd313/videos/1614721431916886/?hc_locat...

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়

সিরিয়া ছবি ইসরাইল যুদ্ধ

আপনার মন্তব্য

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
Page rendered in: 0.0198 seconds.